মূমানু পলিয়েস্টারের সঙ্গে ব্যবসায় আগ্রহী থাই উদ্যোক্তারা

নিউজ ডেস্ক: দেশের একটি পলিয়েস্টার কোম্পানির সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক স্থাপনে আগ্রহ দেখিয়েছেন থাইল্যান্ডের ব্যবসায়ীরা। মানিকগঞ্জের মূমানু পলিয়েস্টার ইন্ডাস্ট্রিজের বিষয়ে ঢাকা সফররত থাই প্রতিনিধি দলের আগ্রহের কারণ কোম্পানিটি প্লাস্টিকের পুরনো বোতল থেকে তুলা তৈরি করে।

রাজধানীর একটি হোটেলে মঙ্গলবার মূমানু পলিয়েস্টার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তারা যৌথভাবে কাজ করার আগ্রহের কথা জানান। সভায় মূমানু পলিয়েস্টারের এমডি আবুল কালাম মোহাম্মদ মূসা কারখানার কার্যক্রম তুলে ধরেন। পরিবেশবান্ধব এ কারখানার পণ্য দেখে থাই ব্যবসায়ীরা সন্তোষ প্রকাশ করেন।

বাংলাদেশের সঙ্গে ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির সম্ভাবনা যাচাইয়ে ১৪ সদস্যের থাইল্যান্ডের এই প্রতিনিধি দল ছয় দিনের সফরে ঢাকায় এসেছে। এই দলের নেতৃত্বে রয়েছেন দেশটির ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর ট্রেড অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (আইটিডি) নির্বাহী পরিচালক মানু সিথিপ্রাসাসান। মূমানু পলিয়েস্টারের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব এ এইচ এম শফিকুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

সভায় মানু সিথিপ্রাসাসান বলেন, প্লাস্টিক বর্জ্য থেকে তুলা তৈরির কারখানার সম্ভাবনা দেখে তারা মুগ্ধ। ভবিষ্যতে তারা পরিবেশবান্ধব এ কারখানার সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করবেন। থাইল্যান্ডের বাজারে এ তুলার ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে অবস্থিত মূমানু পলিয়েস্টার প্লাস্টিকের পুরনো বোতল থেকে দৈনিক প্রায় ৪০ টন তুলা উৎপাদন করছে। এ তুলা থেকে সুতা বানিয়ে রঙবেরঙের পলেস্টার কাপড় তৈরি হচ্ছে। চীন, ভারত, পাকিস্তান ও থাইল্যান্ডে এ ধরনের কারখানা থাকলেও বাংলাদেশে বর্জ্য থেকে তুলা উৎপাদনের এটিই প্রথম কারখানা।