রক্তশূন্যতার উপসর্গ

নিউজ ডেস্ক: আপাতদৃষ্টিতে রক্তশূন্যতা খুব বড় সমস্যা নয় মনে হলেও যেকোন বড় অসুখের শুরু হতে পারে এটা থেকে। এ কারণে শরীরে রক্তশূন্যতা দেখা দিলে সাবধান হওয়া উচিত। 

একজন পূর্ণবয়স্ক নারীর জন্য রক্তে ১২.১ থেকে ১৫.১ গ্রাম/ডেসিলিটার, পুরুষের রক্তে ১৩.৮ থেকে ১৭.২ গ্রাম/ডেসিলিটার, শিশুদের রক্তে ১১ থেকে ১৬ গ্রাম/ডেসিলিটার হিমোগ্লোবিন থাকা স্বাভাবিক। কিন্তু কারও রক্তে যদি এর পরিমাণ কমে যায় তখন তিনি রক্তশূন্যতায় ভূগছেন বলে ভাবা হয়। শরীরে রক্তশূন্যতা দেখা দিলে বেশ কিছু উপসর্গের মাধ্যমে তা প্রকাশ পায়। যেমন-

১. রক্তস্বল্পতা দেখা দিলে রোগী অল্পতেই হাঁপিয়ে ওঠেন। সামান্য কাজ করলেও তার মধ্যে ক্লান্তি দেখা দেয়।  

২. রক্তশূন্যতা হলে শরীরের বিভিন্ন অংশ ফ্যাকাশে দেখায়।  ৩. আয়রনের অভাব হলে রক্তশূন্যতা দেখা দেয়। আর শরীরে আয়রনের ঘাটতি হলে অতিরিক্ত চুল পড়ে।

৪. রক্তশূন্যতার কারণে সারাক্ষন দুর্বলতা ও মাথাব্যথা দেখা দেয়। এতে রোগী বিষন্নতায় আক্রান্ত হন।  

৫. হৃৎস্পন্দন বেড়ে যাওয়াও রক্তস্বল্পতার লক্ষণ প্রকাশ করে। এরকম হলে হৃৎপিণ্ড পর্যাপ্ত পরিমাণে রক্ত দেহে সঞ্চালনের জন্য পাম্প করতে পারে না। তখন হৃৎস্পন্দন বেড়ে যায়।

বিভিন্ন কারণে রক্তশূন্যতা হতে পারে। এর মধ্যে পুষ্টিহীনতা, আয়রন, ফলিক এসিডের ঘাটতি অন্যতম। এছাড়া থ্যালাসেমিয়াজনিত জন্মগত কিছু সমস্যা, বিভিন্ন ওষুধের প্রতিক্রিয়া কিংবা নানা অসুখের কারণেও এটা হতে পারে। 

রক্তশূন্যতার জন্য অনেকে আয়রন ট্যাবলেট সেবন করেন। তবে ইচ্ছে মতো তা না খেয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। এছাড়া যেসব খাবার থেকে আয়রন পাওয়া যাবে শরীরের ঘাটতি পূরণে সেই সব খাবার খাওয়া প্রয়োজন।   সূত্র : জি নিউজ