মহরমের অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদি

নিউজ ডেস্ক: ভারতে সংখ্যাগরিষ্ট মানুষ হিন্দু সম্প্রদায়ের হলেও লোকসভা নির্বাচনে জয়-পরাজয়ে বড় ভূমিকা থাকে দেশটির মোট জনসংখ্যার ১৪.২ ভাগ মুসলমানের। আর সে কথা মাথায় রেখে এবার মুসলিম ভোট টানতে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে মুসলিমদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াচ্ছে দেশটির ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। এরই অংশ হিসেবে মুসলমানদের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে শরিক হলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

 শুক্রবার মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে মহরম উপলক্ষে বোহরা সমাজের ৫৩তম ধর্মগুরুর প্রবচন অনুষ্ঠানে যোগ দেন মোদি। শুধু তাই নয়, সেখানে বক্তৃতাকলে জানান, বহরা সম্প্রদায়ের সঙ্গে তার অনেক পুরনো সম্পর্ক। তিনি এক প্রকার এই সমাজেরই অংশ হয়ে গেছেন বলে মন্তব্য করে তাদের মন পাওয়ারও চেষ্টা করেন মোদি।
 
মসজিদ প্রধান সাইদনা মুফাদ্দল সইফুদ্দিনের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন তিনি। মোদীর সঙ্গে ছিলেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানও।
 
প্রসঙ্গত, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে সচরাচর মুসলিমদের কোনো অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দেখা যায় না। কেবল হিন্দু সম্প্রদায়ের ভোটের কারণে ২০১৪ সালের ভারতের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির ছিল না কোনো মুসলিম প্রার্থী। নির্বাচন জয়ের পরে সে বছর ভারতের তৎকালীন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি আয়োজিত ইফতার পার্টিতেও যোগ দেননি তিনি। ক্ষমতায় আসতে সেই দলটিই এবার নিজেদের অবস্থান থেকে সরে এসেছে।

ইন্দোর, উজ্জয়ন ও বুরহানপুর জেলায় বোহরা সম্প্রদায়ের আড়াই লাখ মানুষের বাস। মধ্যপ্রদেশে আর কিছুদিনের মধ্যেই বিধানসভা নির্বাচন ও এই সম্প্রদায়ের ভোটব্যাংক যথেষ্ট প্রভাব ফেলতে সক্ষম, দাবি বিরোধীদের।