শহিদুলকে নিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের শুনানি সোমবার

নিউজ ডেস্ক: আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি ও চিকিৎসার বিষয়ে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের শুনানি সোমবার পর্যন্ত মুলতবি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।

ক্রম অনুসারে আবেদনটি আপিল বিভাগে উঠলে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের আংশিক শুনানি নিয়ে এ আদেশ দেওয়া হয়। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এবং শহিদুল আলমের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার সারা হোসেন।

এর আগে বুধবার শহিদুল আলমকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে নেওয়া হয়। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর তাকে আবারও গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজতে নেওয়া হয়।

শহিদুলকে হাসপাতাল থেকে কারাগারে নেওয়ার বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তার শারীরিক অবস্থা ভালো বলে হাসপাতালের মেডিকেল বোর্ড মত দিয়েছে।

রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শহিদুল আলমকে তার বাসা থেকে আটক করে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। শিক্ষার্থীদের মধ্যে উসকানিমূলক মিথ্যা প্রচারের অভিযোগে ওই দিনই তার বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের ৫৭ ধারায় মামলা করে গোয়েন্দা পুলিশ।

মামলার এজাহারে শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন নিয়ে ফেসবুক, ইউটিউবসহ সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে গুজব ও উসকানি ছড়ানোর অভিযোগ আনা হয় তার বিরুদ্ধে।

দৃক ও পাঠশালা সাউথ এশিয়ান মিডিয়া একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা শহিদুল আলমকে সোমবার আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নূরের আদালত সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গ্রেফতারের পর তথ্য-প্রযুক্তি আইনের মামলায় রিমান্ডে থাকা আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে মঙ্গলবার দ্রুত হাসপাতালে ভর্তির নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

দ্রুত হাসপাতালে ভর্তির নির্দেশের পাশাপাশি হাইকোর্ট বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার মধ্যে শহিদুলের শারীরিক অবস্থার বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়।