মুমিনুলের রেকর্ডময় ইনিংসে ‘এ’ দলের বড় জয়

নিউজ ডেস্ক: ‘টেস্ট ব্যাটসম্যান’ তকমা দিয়ে তিন বছরেরও বেশি সময় সীমিত ওভারের ক্রিকেটের বাইরে রাখা হয়েছে তাকে। অবশেষে নির্বাচকদের মনে হয়েছে, ওয়ানডেতে জাতীয় দলের টপ অর্ডারে মুমিনুল হকের অভিজ্ঞতাটা কাজে লাগানো যেতে পারে। সে লক্ষ্যে পাঁচটি আনঅফিসিয়াল ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে আয়ারল্যান্ড সফরে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের অধিনায়কও করে দেওয়া হয় তাকে। ডাবলিনে কাল বিধ্বংসী এক ইনিংস খেলে নিজেকে সঠিকভাবেই প্রমাণ করলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

চতুর্থ আনঅফিসিয়াল ওয়ানডেতে মুমিনুলের ১৩৩ বলে ১৮২ ইনিংসটা শুধু আইরিশদের নাকের জল চোখের জলই এক করে দেয়নি, ওলট-পালট করে দিয়েছে রেকর্ড বইয়ে সাজানো পরিসংখ্যানও। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে দেশের বাইরে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ ইনিংস, এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি চার, ‘এ’ দলের সর্বোচ্চ রান- আরো কত কী!

মুমিনুলের রেকর্ডময় ইনিংসের দিনে বড় জয় পেয়েছে দলও। আইরিশদের ৮৫ রানে হারিয়ে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। অধিনায়কের সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশ ‘এ’ দল ৫০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে করেছিল লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজেদের সর্বোচ্চ ৩৮৬ রান। জবাবে সেঞ্চুরি করেছেন আইরিশ অধিনায়ক অ্যান্ডু বালবির্নিও। তবে তার দল অলআউট হয়েছে ৩০১ রানে।

সিরিজের প্রথম ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে গিয়েছে। পরের দুই ম্যাচের একটি জিতেছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল, অন্যটি আয়ারল্যান্ড ‘এ’ দল। কাল চতুর্থ ম্যাচটি তাই পরিণত হয়েছিল সিরিজে এগিয়ে যাবার লড়াইয়ে।উইকলোর ওক হিল ক্রিকেট ক্লাব মাঠে টস জিতে ব্যাটিং নিয়েছিল বাংলাদেশ ‘এ’ দল।

ব্যাটিংয়ে শুরুটা যদিও ভালো হয়নি। দলীয় ৬ রানেই ফিরে যান মিজানুর রহমান। তবে দ্বিতীয় উইকেটে ২১০ রানের বড় জুটি গড়েন জাকির হাসান ও মুমিনুল। জাকির ৯৩ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ৭৯ রান করে ফিরলে ভাঙে এ জুটি। এর আগে দ্বিতীয় ম্যাচেও ৯২ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন ২০ বছর বয়সি এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

৮১ বলে সেঞ্চুরি করেছিলেন মুমিনুল। বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ডাবল সেঞ্চুরি করার দিকেও এগিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু মাইলফলক থেকে ১৮ রান দূরে থাকতে রানআউটে শেষ হয় তার দুর্দান্ত ইনিংস। ১৩৩ বলে ২৭ চার ও ৩ ছক্কায় ১৮২ রানের ইনিংসটি সাজান বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যানের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ইনিংস এটি। সর্বোচ্চ ১৯০ রানের ইনিংসটি গত বছরের মে মাসে ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগে আবাহনীর বিপক্ষে খেলেছিলেন মোহামেডানের রকিবুল হাসান। তবে বিদেশের মাটিতে মমিনুলের ১৮২ রানই সর্বোচ্চ। সর্বোচ্চ ইনিংস কোনো বিদেশি দলের বিপক্ষেও। ২০০৯ সালে বুলাওয়েতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তামিম ইকবালের ১৫৪ রান ছিল আগের সর্বোচ্চ।মুমিনুলের ২৭ চার লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের রেকর্ড। পেছনে পড়েছে ২০১৩ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে নাফীস ইকবালের ২১ চার।

এ ছাড়া মোহাম্মদ মিথুনের ৫১ বলে অপরাজিত ৮৭ রানের ঝোড়ো ইনিংসে রানের পাহাড় গড়ে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। মিথুনের ইনিংসে ছিল ১৪টি চার ও দুটি ছক্কার মার। ১৩ বলে ১৯ রান করেন আল-আমিন।

প্রায় চারশ রান তাড়া করে জেতাটা আইরিশদের জন্য ছিল ভীষণ কঠিন। সেটা আরো কঠিন হয়ে যায় ১৮ রানেই জেমস শ্যাননের বিদায়ে। ২ রান করা শ্যাননকে ফেরান শরিফুল ইসলাম। আরেক ওপেনার জেমস ম্যাককলামকে (৪৩) বোল্ড করেন ফজলে মাহমুদ রাব্বী। আইরিশদের স্কোর তখন ২ উইকেটে ৬৩।

এরপরও স্টুয়ার্ট থম্পসনের (৪২) সঙ্গে ৭৭ ও চতুর্থ উইকেটে সিমি সিংয়ের (৫৩) সঙ্গে ৯৩ রানের জুটিতে আইরিশদের আশা টিকিয়ে রেখেছিলেন অধিনায়ক বালবির্নি। সেঞ্চুরির পরপরই বালবির্নিকে ফিরিয়েছেন খালেদ আহমেদ। ১১১ বলে ১৪ চারে বালবির্নি করেছেন ১০৬। এরপর ২২ রানে শেষ ৪ উইকেট হারিয়ে ৩০১ রানেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিকরা।

খালেদ ও ফজলে মাহমুদ নিয়েছেন ৩টি করে উইকেট। মাহমুদ ১০ ওভারে দিয়েছেন ৪৭ রান, খালেদ ৭৩। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ৩৫ রানে ২টি, শরিফুল ৫২ রানে ২টি উইকেট নিয়েছেন।

একই মাঠে শুক্রবার শেষ আনফিসিয়াল ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে দুই দল। এরপর হবে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ।