থাইল্যান্ডের নাগরিকত্ব পেলো চার ফুটবলার

নিউজ ডেস্ক: শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানে থাইল্যান্ডের গুহা থেকে উদ্ধার হওয়া ফুটবল দলের কোচ ও তিন কিশোরকে নাগরিকত্ব দিয়েছে থাইল্যান্ড।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্রের বরাত দিয়ে বুধবার এবিসি নিউজ এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলীয় চিয়াং রাই প্রদেশের মায়ে সাই জেলায় এক অনুষ্ঠানে ওই চারজনের হাতে নাগরিকত্বের কার্ড তুলে দেন জেলার প্রধান কর্মকর্তা সোমসাক কানাকাম।

তারা হলেন- ফুটবল দলের কোচ এক্কাপোল চ্যানতাওং, সদস্য আদুল স্যাম-অন,মঙ্কল বুনাপিয়াম ও প্রোংচাই কামলুয়াং।

এবিসি নিউজ বলছে, পার্বত্য গুহায় কিশোর ফুটবল দলটি আটকা পড়ার পর জানা যায়, দলের তিন সদস্য ও তাদের কোচও থাইল্যান্ডে আশ্রয় নেওয়া শরণার্থীরদের মধ্যে রয়েছেন। রাষ্ট্রহীন ওই চারজন নাগরিকত্বের জন্য আবেদনও করেছেন।

গত ২৩ জুন ১২ সদস্যের ওই কিশোর ফুটবল দল এবং তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং’ গুহায় প্রবেশ করেন।

প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে আকস্মিক পাহাড়ি ঢলে গুহার ভেতর পানি ঢুকে পড়লে দলটি সেখানে আটকা পড়ে। ১০ দিন পর ডুবুরিরা গুহায় তাদের সন্ধান পান।

এরপর এক পর্যায়ে ১২ কিশোর ও তাদের কোচকে উদ্ধারে অভিযান শুরু করে থাই কর্তৃপক্ষ। আটকে পড়া কিশোরদের কাছে অক্সিজেন সরবরাহ করে ফেরার পথে অক্সিজেন ঘাটতির কারণে এক ডুবুরির মৃত্যুও হয়।

গত ১০ জুলাই তৃতীয় দফায় অভিযান চালিয়ে সর্বশেষ চার কিশোর ও তাদের কোচকে গুহা থেকে বের করে আনা হয়। এর মধ্য দিয়ে চরম ঝুঁকিপূর্ণ উদ্ধার অভিযানের সফল সমাপ্তি ঘটে।