হাসপাতাল থেকে ফের ডিবিতে শহিদুল আলম

নিউজ ডেস্ক: তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় রিমান্ডে থাকা প্রখ্যাত আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে হাইকোর্টের নির্দেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে ফের ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুন বলেন, সকালে শহিদুল আলমকে হাসপাতালে নিয়ে আসার পর আমাদের চার সদস্যের মেডিকেল বোর্ড তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে। পরীক্ষা শেষে বোর্ড সদস্যারা জানান, শহিদুল আলমকে হাসপাতালে ভর্তির প্রয়োজন নেই।

এর আগে ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার আবদুল বাতেন সমকালকে বলেন, বুধবার সকাল ৯টার দিকে শহিদুল আলমকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেওয়া হয়।

আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বিএসএমএমইউয়ে পাঠাতে গতকাল মঙ্গলবার নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। শহিদুল আলমকে রিমান্ডে নেওয়ার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি সৈয়দ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি ইকবাল কবির সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল মঙ্গলবার এ নির্দেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ড. কামাল হোসেন ও ব্যারিস্টার সারা হোসেন।

আদেশের পর ড. কামাল হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, যেহেতু আদালত দ্রুত উনাকে হাসপাতালে স্থানান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন, সেই পর্যন্ত তার রিমান্ড স্থগিত থাকবে।

দৃক গ্যালারি ও পাঠশালা সাউথ এশিয়ান মিডিয়া একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা শহিদুল আলমকে সোমবার আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নুরের আদালত সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। শিক্ষার্থীদের মধ্যে উস্কানিমূলক মিথ্যা প্রচারের অভিযোগে ওই দিনই তার বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের ৫৭ ধারায় মামলা করে গোয়েন্দা পুলিশ।

মামলার এজাহারে শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন নিয়ে ফেসবুক, ইউটিউবসহ সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে গুজব ও উস্কানি ছড়ানোর অভিযোগ আনা হয় তার বিরুদ্ধে। রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শহিদুল আলমকে তার ধানমণ্ডির বাসা থেকে আটক করে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।