সরকার শিশু-কিশোরদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

মীর আকরাম উদ্দীন আহম্মদ: তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারী শিশু-কিশোরদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিয়েছে সরকার। ঢাকার মার্কিন দূতাবাস ও জাতিসংঘের কার্যালয় থেকে যে বিবৃতি দেওয়া হয়েছে, তা অযাচিত ও অনভিপ্রেত।’

মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত মতবিনিময়কালে তথ্যমন্ত্রী মার্কিন দূতাবাসের বিবৃতি প্রত্যাখ্যান করে তা প্রত্যাহারেরও আহ্বান জানান।

হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘বেপরোয়া গাড়ি চালনায় সড়ক দুর্ঘটনায় দু’জন ছাত্রছাত্রীর মৃত্যু ও কয়েকজন ছাত্রছাত্রীর আহত হবার ঘটনায় সমগ্রজাতির সাথে আমরাও ব্যথিত ও মর্মাহত। ধানমন্ডিসহ শহরের দু’তিন জায়গায় বিক্ষিপ্ত-বিচ্ছিন্ন যে সংঘর্ষেও ঘটনা ঘটেছে, পুলিশ সেগুলো নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করেছে কিন্তু ছাত্রছাত্রীদের ওপর কোনো আক্রমণ হয়নি। সরকার এ আন্দোলনের চেতনাকে ধারণ করে ও তাদের দাবি মেনে নিয়ে রাস্তায় অবস্থানকারী শিশু-কিশোরদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সবসময় সচেষ্ট ছিল।’

‘এরকম পরিস্থিতিতে মার্কিন দূতাবাস যে বক্তব্য দিয়েছে, তা দুঃখজনক। মার্কিন দূতাবাসের বিবৃতিতে শিশুদের আন্দোলনকে বর্বরোচিত হামলার মধ্য দিয়ে দমন করার যে কথা বলা হয়েছে, তেমন কোনো ঘটনাই ঘটেনি, তা বাস্তব চিত্রের প্রতিফলনও নয়। আমরা এর নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি প্রত্যাখ্যান করছি ও প্রত্যাহারের আহ্বান জানাচ্ছি। এই বিবৃতি বাংলাদেশের আভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে শিষ্টাচারবহির্ভূত নাক গলানোর অপপ্রয়াস’, বলেন তিনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘের বাংলাদেশ দপ্তরের প্রধানও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের বিষয়ে যে বিবৃতি দিয়েছেন সেটিও সঠিক চিত্রের প্রতিফলন নয়। আমরা আশা করি, তারা এ ধরনের বিবৃতি থেকে বিরত থাকবেন এবং বাংলাদেশের প্রকৃত ঘটনার ভিন্ন চিত্রায়ণ করবেন না। এ বিষয়ে সরকারের বক্তব্য লিখিতভাবে দুই দপ্তরে পাঠানো হবে।’

‘কোনো দূতাবাস বা জাতিসংঘ কোনো বিবৃতিতে দেয়ার আগে সংশ্লিষ্ট দেশের সরকারের বক্তব্য নেয়াটা অত্যন্ত স্বাভাবিক। এর ব্যতিক্রম দুঃখজনক’, বলেন তিনি।

হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনের শেষের দিকে কিছু জায়গায় কর্তব্যরত সাংবাদিকদের ওপর যে হামলা হয়েছে, তা দুঃখজনক। হামলাকারীদের চিহ্নিত করার জন্য এবং তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে আজই চিঠি দেওয়া হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মৌখিকভাবেও ইতিমধ্যে আশ্বাস দিয়েছেন যে তিনি পদক্ষেপ নেবেন।’

এর পরপরই তথ্যমন্ত্রী এবিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে একটি অনুরোধপত্র দিয়ে কর্তব্যরত সাংবাদিকদের ওপর হামলাকারীদের চিহ্নিত করা এবং তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেন।