সিলেটে থেমেছে আন্দোলন-ধর্মঘট, জনমনে স্বস্তি

সিলেট প্রতিনিধি: রাজধানীতে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার জেরে নিরাপদ সড়কের দাবীতে ঢাকার স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের সাথে সাথে সিলেটেও বিক্ষোভ প্রদর্শন করে আসছিলো সিলেটের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। ঘাতক বাস চালকদের বিচার করাসহ ৯ দফা দাবিতে টানা ৫ দিন ধরে যৌক্তিক আন্দোলন শেষে সোমবার মন্ত্রীসভায় উপস্থাপিত নতুন সড়ক পরিবহন আইনের খসড়া অনুমোদন হওয়ায় আন্দোলন থেকে সরে দাড়িয়েছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

সোমবার বেলা ১১ টা থেকে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে নগরীর চৌহাট্টা পয়েন্টে জড়ো হন সিলেটের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা। এসময় নিজেদের উত্থাপিত ৯দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন তারা। তারা জানিয়েছিলো বিকাল ৫টা পর্যন্ত তারা অবস্থান করবে। তবে মন্ত্রীসভায় নতুন সড়ক পরিবহন আইনের খসড়া অনুমোদন হওয়ার খবর পাওয়ার পর তারা প্রায় তিন ঘন্টা অবস্থান কর্মসুচী শেষে বেলা ২ টার দিকে তারা অবস্থান থেকে চলে যায়। শিক্ষার্থীরা জানান, আমরা জেনেছি সড়ক পরিবহন আইন মন্ত্রীসভায় অনুমোদন পেয়েছে। একারণে আমরা প্রাথমিকভাবে অবস্থান থেকে ফিরে যাচ্ছি।

আইনে আমাদের দাবি-দাওয়ার সম্পূর্ণ প্রতিফলন ঘটেনি। প্রয়োজনে আমরা আবারও রাস্তায় নামবো।এদিকে, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের ‘অঘোষিত ধর্মঘটের’ কারণে শুক্রবার থেকে ক’দিনের অচলাবস্থার পর সোমবার (৬ আগস্ট) সকাল থেকে সবধরণের যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। সোমবার সকাল থেকে সিলেট থেকে দূরপাল্লার যানবাহন ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের বিভিন্ন রুটে যান চলাচল শুরু করেছে। চালকরা জানিয়েছে, সিলেট থেকে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন রুটে যানবাহন চলাচল করার অনুমতি দিয়েছে সিলেট জেলা পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সমিতি। একদিকে ছাত্র-ছাত্রীদের আন্দোলন আর অন্যদিকে শ্রমিকদের অবরোধ-ধর্মঘটে সিলেটে উৎকণ্ঠা ও অচলাবস্থা বিরাজ করছিল।

প্রাথমিকভাবে সিলেটের ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের আন্দোলনের অবস্থান কর্মসুচী থেকে সরে দাঁড়ানোয় এবং শ্রমিকরা তাদের ‘অঘোষিত ধর্মঘট’ স্থগিত করায় সিলেটের জনমনে যেনো স্বস্তি ফিরেছে। সিলেটে থেমেছে আন্দোলন-ধর্মঘট, জনমনে স্বস্তি রাজধানীতে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার জেরে নিরাপদ সড়কের দাবীতে ঢাকার স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের সাথে সাথে সিলেটেও বিক্ষোভ প্রদর্শন করে আসছিলো সিলেটের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। ঘাতক বাস চালকদের বিচার করাসহ ৯ দফা দাবিতে টানা ৫ দিন ধরে যৌক্তিক আন্দোলন শেষে সোমবার মন্ত্রীসভায় উপস্থাপিত নতুন সড়ক পরিবহন আইনের খসড়া অনুমোদন হওয়ায় আন্দোলন থেকে সরে দাড়িয়েছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। সোমবার বেলা ১১ টা থেকে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে নগরীর চৌহাট্টা পয়েন্টে জড়ো হন সিলেটের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা।

এসময় নিজেদের উত্থাপিত ৯দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন তারা। তারা জানিয়েছিলো বিকাল ৫টা পর্যন্ত তারা অবস্থান করবে। তবে মন্ত্রীসভায় নতুন সড়ক পরিবহন আইনের খসড়া অনুমোদন হওয়ার খবর পাওয়ার পর তারা প্রায় তিন ঘন্টা অবস্থান কর্মসুচী শেষে বেলা ২ টার দিকে তারা অবস্থান থেকে চলে যায়। শিক্ষার্থীরা জানান, আমরা জেনেছি সড়ক পরিবহন আইন মন্ত্রীসভায় অনুমোদন পেয়েছে। একারণে আমরা প্রাথমিকভাবে অবস্থান থেকে ফিরে যাচ্ছি। আইনে আমাদের দাবি-দাওয়ার সম্পূর্ণ প্রতিফলন ঘটেনি। প্রয়োজনে আমরা আবারও রাস্তায় নামবো।

এদিকে, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের ‘অঘোষিত ধর্মঘটের’ কারণে শুক্রবার থেকে ক’দিনের অচলাবস্থার পর সোমবার (৬ আগস্ট) সকাল থেকে সবধরণের যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। সোমবার সকাল থেকে সিলেট থেকে দূরপাল্লার যানবাহন ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের বিভিন্ন রুটে যান চলাচল শুরু করেছে। চালকরা জানিয়েছে, সিলেট থেকে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন রুটে যানবাহন চলাচল করার অনুমতি দিয়েছে সিলেট জেলা পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সমিতি। একদিকে ছাত্র-ছাত্রীদের আন্দোলন আর অন্যদিকে শ্রমিকদের অবরোধ-ধর্মঘটে সিলেটে উৎকণ্ঠা ও অচলাবস্থা বিরাজ করছিল। প্রাথমিকভাবে সিলেটের ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের আন্দোলনের অবস্থান কর্মসুচী থেকে সরে দাঁড়ানোয় এবং শ্রমিকরা তাদের ‘অঘোষিত ধর্মঘট’ স্থগিত করায় সিলেটের জনমনে যেনো স্বস্তি ফিরেছে।

প্রিন্স, ঢাকা