ক্লাসে ফেরার ঘোষণা ৪২১ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীর

নিউজ ডেস্ক: রাজপথের আন্দোলন ছেড়ে ক্লাসে ফেরার ঘোষণা দিয়েছে রাজধানীর ৪২১টি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

সোমবার নগরভবনে ‘নিরাপদ সড়ক ও আমাদের করণীয়’ শীর্ষক মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠানে তারা এই ঘোষণা দেয়।

এ সময় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানিয়ে ও তাদের দাবি-দাওয়া মেনে নিয়ে বলেন, তোমরা ক্লাসে ফিরে যাও। তোমাদের যৌক্তিক দাবি বাস্তবায়নে যতটুকু করণীয় সেটা করব।

তিনি বলেন, এই গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে মুক্ত মত প্রকাশের সুযোগ রয়েছে। সেই সুযোগ ব্যবহার করে ব্যাগের মধ্যে পাথর ও অস্ত্র নিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যার ওপর হামলা চালানোর চেষ্টা করলে বাংলার জনগণ বসে থাকবে না। সন্ত্রাসী গুণ্ডা বাহিনীর কালো হাত গুঁড়িয়ে দেওয়া হবে।

ডিএসসিসি আয়োজিত এ মুক্ত আলোচনায় ৪২১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা অংশ নেন।

এ সময় শিক্ষার্থীরা জানায়, ঢাকার বেশিরভাগ ফুটপাত ও রাস্তা অবৈধ দখলে আছে। তাই বাধ্য হয়ে সড়কের মধ্য দিয়ে চলাচল করতে হয়। নিরাপদ সড়কের লক্ষ্যে এসব সমস্যা সমাধানে মেয়রকে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে। পুলিশ সদস্যদের নানা অনিয়ম-দুর্নীতির কথাও তুলে ধরে শিক্ষার্থীরা।

অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় যারা মারা যান, তাদের ৩০ শতাংশই শিক্ষার্থী। নিরাপদ সড়কের জন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে, সম্মিলিত উদ্যোগ নিতে হবে।

পুরান ঢাকার বাংলাবাজারের কে এল জুবলী স্কুলের শিক্ষার্থী অয়ন সাহা জানায়, তাদের স্কুলের সামনে ট্রাফিক প্রয়োজন। এদিকে রাস্তা খুব সরু। মেয়রের কথায় বিশ্বাস রেখে তারা ক্লাসে ফিরছে। তবে তাদের দাবিগুলো মানতে হবে।

আজিমপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ঐশান্তি দাস ঐশী জানায়, নিরাপদ সড়কের দাবি আদায়ের আন্দোলন করতে গিয়ে তারা দেখেছে, পুলিশ তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করে না। তারা তা না করলে নিরাপদ সড়ক কীভাবে হবে?

রাইফেলস পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী রুম্মন প্রত্যেক স্কুলের সামনে ট্রাফিক পুলিশের ব্যবস্থা করার জন্য মেয়রকে অনুরোধ জানান।

সে বলে, সরকার তাদের দাবি মেনে নিয়েছে। তারা ক্লাসে ফিরে যেতে চায়।

অভিভাবকদের পক্ষে কামরুন নাহার শিক্ষার্থীদের প্রতি বলেন, তোমরা সফল। কেননা সরকার তোমাদের দাবি মেনে নিয়েছে। এবার তোমরা ক্লাসে ফিরে যাও।

অনুষ্ঠানে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, সহ-সভাপতি ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবু আহমেদ মান্নাফী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।