পাওনা টাকা না দিয়ে রিকশা চালককে কুকুর দিয়ে নির্যাতন

নিউজ ডেস্কঃ নারায়ণগঞ্জে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে বর্বর নির্যাতনের শিকার হয়েছেন আবদুর রাজ্জাক নামে এক রিকশাচালক। পালিত বিদেশি কুকুর লেলিয়ে তাকে নির্যাতন করা হয়। কুকুরের কামড়ে তার সারা শরীর ক্ষতবিক্ষত হয়ে যায়। শুক্রবার রাতে শহরের জামতলায় আবদুর রহিমের বাড়ির ছাদে এ ঘটনা ঘটে। আহত রাজ্জাক লালমনিরহাটের মৃত আজিজুর রহমানের ছেলে। তিনি জামতলার আমতলা এলাকার আনিসের বাড়ির ভাড়াটিয়া।

আবদুর রাজ্জাক জানান, একই এলাকায় বসবাসের সুবাদে আবদুর রহিমের বাড়ির প্রহরী মহিউদ্দিন তার কাছ থেকে সাত হাজার টাকা ধার নেয়। শুক্রবার ছিল সেই টাকা পরিশোধের দিন। এর আগেও বেশ কয়েকবার টাকা পরিশোধের দিন দিয়েও মহিউদ্দিন টালবাহানা করে। সর্বশেষ শুক্রবার টাকা পরিশোধের সময় দেয় সে। রাত ১০টায় টাকা দেবে বলে রাজ্জাককে ডেকে নিয়ে যায়।

ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর মহিউদ্দিনের বাড়ির মালিকের ছেলে রুপু তার বিরুদ্ধে মেয়েকে অশ্নীল ইঙ্গিতের অভিযোগ তুলে উল্টো ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। এক পর্যায়ে তাকে চড়-থাপ্পড় দিয়ে টাকা নিয়ে আসতে ছেড়ে দেন। পরে রাত সাড়ে ১১টায় রুপু দ্বিতীয় দফায় তাকে ডেকে তাদের বাড়ির ছাদে নিয়ে যান। এরপর দুটি বিদেশি কুকুর রাজ্জাকের ওপর লেলিয়ে দেন। তখন কুকুরের আঁচড় ও কামড়ে তার সর্বাঙ্গ ক্ষতবিক্ষত হয়। এক পর্যায়ে তিনি নিস্তেজ হয়ে পড়েন। গতকাল শনিবার এলাকাবাসী চাঁদা তুলে তাকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করায়।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি শাহ মঞ্জুর কাদের বলেন, ঘটনাটি জানতে পেরে গতকাল বিকেলে থানার এক এসআইকে পাঠিয়ে ভুক্তভোগী রাজ্জাককে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।