ছাত্ররা ঘরে ফিরলেই পরিবহন ব্যবস্থা স্বাভাবিক হবে: কাদের

নিউজ ডেস্ক: অাওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অান্দোলনকারীদের সব দাবি মেনে নিয়েছি। অনেকগুলো বাস্তবায়নের পথে। সড়ক দুর্ঘটনার বিষয়ে সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান রেখে অাইন পাস হচ্ছে। অাগামী সোমবার মন্ত্রিসভায় এবং পরবর্তী সংসদ বসলে এ অাইন পাস করা হবে। তাই অাবার শিক্ষার্থীদের বলবো অনেকে ঘরে ফিরেছে, তোমরাও ঘরে ফিরে যাও। ছাত্ররা ঘরে ফিরলেই পরিবহন ব্যবস্থা স্বাভাবিক হবে।

শনিবার ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। সভায় দেশের পরিস্থিতি ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে চলমান ছাত্র আন্দোলন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, শিক্ষার্থীদের ৯ দফা দাবির সবই পূরণ করা হয়েছে। তবে ফিটনেসবিহীন গাড়ির রুট পারমিট বাতিলে সময় লাগবে। এ মুহূর্তে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) জনবলের সংকট রয়েছে। আমরা বসে নেই। কাজ শুরু হয়েছে।

তিনি বলেন, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে রাজনৈতিক অনুপ্রবেশকারীরা আন্দোলনে ঢুকেছে। বিএনপি চাইছে এই আন্দোলনকে পুঁজি করে মাঠ ঘোলা করে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিল করতে। গোয়েন্দারা সব তথ্য নিচ্ছে।

বাস চালক ও শ্রমিকদের অঘোষিত আন্দোলনের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, শঙ্কায় চালকরা নামতে চাইছে না। আমরা নামাতে চেষ্টা করছি।

নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের পদত্যাগ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, তিনি ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছেন। যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের বাড়িতে গেছেন এবং অার্থিকভাবে সহযোগিতা করেছেন। এরপর অার কী বলার থাকে?

সম্পাদকমণ্ডলির সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন দলের যুগ্ম-সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, একেএম এনামুল হক শামীম, কৃষি ও সমবায় সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী প্রমুখ।