ওবায়দুল কাদেরর ফোন পেলে তাকে ফিরতি ফোন করবঃমির্জা ফখরুল

নিউজ ডেস্কঃ আলোচনার জন্য বিএনপি প্রস্তুতি নিচ্ছে জানিয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামীলীগ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তাকে টেলিফোন করলে তিনিও তাকে ফিরতি কল করবেন। বিএনপি মহাসচিব বলেন, যে কোনো সময় ও স্থানে আলোচনায় বসতে তারা প্রস্তুত।

শুক্রবার নয়াপল্টনে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল।এর কয়েক ঘন্টা আগে এক অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন নিয়ে বিএনপির সঙ্গে আনুষ্ঠানিক সংলাপের প্রয়োজন নেই।তবে পারস্পরিক দূরত্ব কমাতে দলটির নেতাদের সঙ্গে আলাপে বাধা নেই। সমঝোতার (ওয়ার্কিং আন্ডারস্ট্যান্ডডিং) জন্য বিএনপির নেতাদের সঙ্গে ফোনে কথা হতে পারে। গত বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, নির্বাচনে অংশ নিলে যে কোনো দলের সঙ্গে আলোচনা হতে পারে। তবে পরেরদিনই ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে আলোচনার কথা বলেননি।

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে। কিন্তু তিনি তা গ্রহণ করেননি। তবে নির্বাচনের পর থেকে সংলাপে বসতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে যাচ্ছে বিএনপি। কিন্তু আওয়ামী লীগ সংলাপ প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছে।

ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যে প্রধান দুই দলের আলোচনার সম্ভাবনা নিয়ে রাজনীতিতে নতুন গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে। মির্জা ফখরুল শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বিএনপি বহুবার আলোচনার জন্য বলেছে, আহ্বান করেছি। আবারও আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি আওয়ামী লীগের উদ্দেশে বলেন, আসুন কথা বলি। কোথায় বসবেন, কী করবেন, বলেন। বিএনপি সব সময় প্রস্তুত রয়েছে।।

তিন সিটির নির্বাচনে আচরণবিধি ‘লঙ্ঘন’ ও বিএনপির ওপর’দমনপীড়ন’
এর চিত্র তুলে ধরতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, নির্বাচন কমিশন ভোটকে ‘তামাশায়’ পরিণত করেছে। নির্বাচন কমিশনারদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বলেছেন, চেষ্টা করছে। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের কাজ চেষ্টা করা নয়। তাদের সাংবিধানিক কর্তৃত্ব রয়েছে। সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করা ইসির দায়িত্ব। হয় সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি করুন, নয়ত পদত্যাগ করে জাতিকে রক্ষা করুন। যে ইসি একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে সরাতে পারে না তাদের নির্বাচন সুষ্ঠু করার যোগ্যতা নেই।

সিলেটে মেয়র পদে প্রার্থী দিয়েছে জামায়াতে ইসলামী। জোটসঙ্গীর সমর্থন ছাড়া বিএনপি জিততে পারবে কিনা-এ সংশয়ের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, একানব্বইয়ের নির্বাচনে বিএনপি এককভাবে অংশ নিয়ে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করেছিল। নির্বাচনে জিততে বিএনপিকে কারো ওপর নির্ভর করতে হয় না। তারা জোট করেছেন বৃহত্তর স্বার্থে, গণতন্ত্র পুররুদ্ধারে।