নেত্রকোনা: ১৯জনের যাবজ্জীবন ও ৩ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ

নিউজ ডেস্ক: নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলার আদমপুর গ্রামে ডাকাতি করার সময় চয়ন সরকারকে (২৫) বন্দুকের গুলিতে হত্যার অভিযোগে তিনজনকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ এবং ১৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের প্রত্যেককে ২০ হজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। অনাদায়ে আরো ৩ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

মঙ্গলবার নেত্রকোনার জেলা ও দায়রা জজ কে এম রাসেদুজ্জামান রাজা এই রায় প্রদান করেন। মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত আসামিরা হলেন- ওসমান গণি, কাওসার আহমেদ এবং তাহের। এরমধ্যে তাহের পলাতক।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- শহীদ মিয়া, জ্যোতি, মহিবুর, রমজান মিয়া, সিদ্দিক, মনো মিয়া, ইসলাম উদ্দিন, শাহজাহান, কবির, রইস আলী, জিয়াউল হক, শফিক, দিদার, খলিল, আক্কাস, হিরা, ওস্তার আলী, শুকুর এবং রহিম।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০১১ সনের ১১ সেপ্টেম্বর রাতে আন্তঃজেলা ডাকাত দল মনোরঞ্জন সরকারের বাড়িসহ আরো তিনটি বাড়িতে ডাকাতি করার সময় গ্রামবাসী টের পেয়ে ডাকাত দলকে ঘেরাও করে ফেলে। ডাকাত দলের লোকজন হঠাৎ এলোপাথারি বন্দুকের গুলি ছুড়লে ডাকাতের গুলিতে চয়ন সরকার নিহত হন। চয়নের বাবা মনোরঞ্জন সরকার বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ২০/২৫ জনের বিরুদ্ধে খালিয়াজুরী থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ দীর্ঘদিন তদন্ত শেষে ২০১৩ সনের ২৪ জানুয়ারি ২৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে। মামলা চলাকালিন সময়ে আক্কাস (২৫) নামে একজন আসামি মৃত্যু বরণ করেন। বিজ্ঞ বিচারক ১৪ জনের সাক্ষ্য প্রমাণাদি গ্রহণ শেষে উপরোক্ত রায় প্রদান করেন।

বাদীপক্ষে মামলা পরচালনা করেন পিপি এডভোকেট সাইফুল আলম প্রদীপ। আসামি পক্ষে ছিলেন এডভোকেট আব্দুল লতিফ।