কিডনি বিকল ঝুঁকিতে নওয়াজ শরিফ

নিউজ ডেস্ক: যেকোনো মুহূর্তে কিডনি বিকল হয়ে যেতে পারে পাকিস্তানের অযোগ্য ঘোষিত সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের। তাকে রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা কারাগার থেকে তাৎক্ষণিকভাবে হাসপাতালে নেওয়ার আহবান জানিয়েছে একটি মেডিক্যাল বোর্ড। খবর এনডিটিভি ও দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের।

সূত্রের বরাত দিয়ে দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, নওয়াজ শরিফের রক্তে ইউরিয়া নাইট্রোজেনের পরিমাণ বিপজ্জনক মাত্রায় বৃদ্ধি পেয়েছে। তার হৃৎস্পন্দন অনিয়মিত হয়ে গেছে। তিনি ডিহাইড্রেশনে ভুগছেন ও অত্যধিক পরিমাণে ঘামছেন।

এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের প্রতিবেদন অনুসারে, নওয়াজ যে হাসপাতালে আছেন, সেখানে তার চিকিৎসার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই। তাকে জরুরি ভিত্তিতে হাসপাতালে ভর্তি করা উচিৎ। তাৎক্ষণিকভাবে হাসপাতালে ভর্তি করা না হলে, রাতে জরুরি অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে।

এমতাবস্থায়, নওয়াজকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে কিনা এ বিষয়ে শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা রয়েছে পাকিস্তানের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের।

অভ্যন্তরীণ সূত্রের বরাত দিয়ে এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, রবিবার নওয়াজকে কারাগারের ভেতরেই পরীক্ষা করে দেখেছে মেডিক্যাল বোর্ড।

এদিকে, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের এক সূত্র জানিয়েছে, তিনবার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা নওয়াজকে নিয়মিতভাবেই মেডিক্যাল পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষায় তার শরীরের অবস্থা স্বাভাবিকই দেখা গেছে।

প্রসঙ্গত, লন্ডনে কেনা চারটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাটের মূল্য পরিশোধে দেওয়া অর্থের উৎস দেখাতে ব্যর্থ হওয়ায় ৬ জুলাই নওয়াজ ও তার মেয়ে মরিয়ম শরিফকে কারাদণ্ড দেয় পাকিস্তানের জবাবদিহিতা আদালত।

রায়ে নওয়াজকে ১০ বছরের কারাদণ্ড ও ৮০ লাখ পাউন্ড জরিমানা করে আদালত। অন্যদিকে মরিয়মকে ৮ বছরের কারাদণ্ড ও ২০ লাখ পাউন্ড জরিমানা করা হয়। ১৩ জুলাই দেশে ফেরার পরপরই গ্রেফতার করা হয় তাদের।