নলডাঙ্গায় আটক ৩

নাটোর প্রতিনিধি: স্বামী শাশুড়ি ও ননদের নির্যাতনে নাটোরের নলডাঙ্গায় মলেকা খাতুন নামের এক গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার শাখাড়িপাড়া গ্রামে শাশুড়ি ননদের সাথে গৃহবধুর ঝগড়ার জের ধরে বেধদম নির্যাতন ও মারপিটে ওই গৃহবধুর মৃত্যু হলে বিষয়টি ধামাচাপা দিতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা বলে এলাকায় প্রচার করছিল। পরে শুক্রবার দুপুরে বিষয়টি প্রকাশ পেলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় মামলা দায়ের হলে ওই গ্রামের চাঁনমোহম্মাদ আলীর ছেলে স্বামী গোলাম রাব্বানি (৩৫) শাশুড়ি শামিউন (৫০) ও ননদ পারুল খাতুন (২৮) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নির্যাতন ও মারপিটে গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে বলে স্বীকার করেছে তারা। শনিবার তাদের আদালতে ১৬৪ ধারা জবানবন্দি রের্কড করার জন্য পাঠানো হয়েছে। নিহত মলেকা খাতুন (২৫) শাখাড়িপাড়া গ্রামের চাঁনমোহাম্মাদ আলীর ছেলে গোলাম রাব্বানী স্ত্রী ও কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটুসরপুর ইউনিয়নের মঞ্জিল প্রামানিকের মেয়ে।

নলডাঙ্গা থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী এবং নিহতের স্বজনরা জানান, গত তিন বছর পূর্বে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটুসরপুর ইউনিয়নের মঞ্জিল প্রামানিকের মেয়ে মলেকা খাতুনের সাথে নলডাঙ্গা উপজেলার শাখাড়িপাড়া গ্রামের চাঁনমোহাম্মাদ আলীর ছেলে গোলাম রাব্বানীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্বামী গোলাম রাব্বানী চাকুরীর সুবাদে ময়মনসিংহে থাকতে হয়। এ সুযোগে প্রতিনিয়ত শাশুড়ি ও ননদের সাথে গৃহবধু মলেকা খাতুনের সংসারের খুটিনাটি বিষয় নিয়ে ঝগড়া হয়। এর জের গত বৃহস্পতিবার স্বামী গোলাম রাব্বানী ছুটি নিয়ে বাড়ি এলে শাশুড়ী ননদ ওই গৃহবধুর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ দেয়।

মা ও বোনের অভিযোগ শুনে গোলাম রাব্বানী স্ত্রী মলেকা খাতুন কে মারধর শুরু করে। বেদম মারপিট ও নির্যাতনের এক পর্যায়ে গৃহবধু মারা যায়। তখন বিয়ষটি ধামাচাপা দিতে গৃহবধুর গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে এলাকায় প্রচার করে। পরে শুক্রবার দুপুরে বিষযটি জানাজানি হলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। নিহতের ছোট ভাই আলী হাসানের দাবী করেন, আমার বোন মলেকাকে এমনভাবে পেটানো হয়েছে যে কান দিয়ে প্রচুর রক্ত বের হয়েছে। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

নলডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নুর হোসেন খন্দকার জানান, সংসারের খুটিনাটি বিষয় নিয়ে ওই গৃহবধুর ঝগড়া লেগেই থাকতো। এর জের ধরে স্বামী গোলাম রাব্বানী বাড়িতে স্ত্রী মলেকা কে এমনভাবে চড় মেড়েছে যে কান দিয়ে প্রচুর রক্তক্ষনন হয়ে মারা যেতে পারে। নিহতের বাবা মঞ্জিল প্রামানিক বাদী হয়ে স্বামী শাশুড়ি ও ননদ কে আসামী করে মামলা দায়ের করেছে। তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে। শনিবার তাদের আদালতে ১৬৪ ধারা জবানবন্দি রের্কড করার জন্য পাঠানো হয়েছে।

প্রিন্স, ঢাকা