ফুলবাড়ীতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদ্বোধন

ফুলবাড়ী প্রতিনিধি: স্বয়ংসম্পূর্ণ মাছে দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ- এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৮ উদ্বোধন করা হয়েছে। ১৯ জুলাই বৃহঃবার সকাল ১০টায় উপজেলা মৎস্য দপ্তরের আয়োজনে মৎস্যচাষী, মৎস্যজীবী, মৎস্য ব্যবসায়ী, শিক্ষার্থী, সূধীজন, বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সমন্বয়ে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী উপজেলা মৎস্য দপ্তরের সামনে থেকে শুরু হয়ে উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

র‌্যালী শেষে উপজেলা পরিষদ চত্বরে উদ্বোধনী আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবেন্দ্রনাথ উরাঁও এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান নজির হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উক্ত সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আতাউর রহমান শেখ, ফুলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ। আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার মজিবর রহমান, ফুলবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হারুন অর রশিদ, মৎস্যচাষী সুরুজ্জামাল মিয়া সুরুজ, মৎস্য ব্যবসায়ী সুরেন চন্দ্র বিশ্বাস প্রমূখ। সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা মৎস্য অফিসার মাহমুদুন্নবী মিঠু। তিনি বলেন, মাছ উৎপাদনে বাংলাদেশ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে।

দেশের মোট চাহিদার চেয়ে প্রতি বছর ৮৬ মেঃ টন মাছ বেশি উৎপাদন হচ্ছে। কিন্তু ফুলবাড়ী উপজেলা সে তুলনায় অনেক পিছিয়ে আছে। এখানে প্রতিবছর মাছ উৎপাদনে ঘাটতি রয়েছে ১ মেঃ টন। তাই মাছের উৎপাদন বাড়াতে আধুনিক পদ্ধতির ওপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন। তিনি আরও বলেন, তেলাপিয়া মাছ ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।

তাই সকলের উচিৎ বেশি বেশি তেলাপিয়া মাছ খাওয়া। মাছের প্রজণন বৃদ্ধি ও পোনা মাছ রক্ষার জন্য সরকার কারেন্ট জাল, চটজাল, খেতাজাল ও মশারি জাল নিষিদ্ধ করেছে। স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হওয়ায় রূপচান্দা নামে পরিচিত পিরানহা ও আফ্রিকান জাতের মাগুর মাছ নিষিদ্ধ করা হয়েছে মৎস্য আইনে। ফেব্রুয়ারি হতে জুন পর্যন্ত ৩০ সেঃ মিঃ এর ছোট শিলন, বোয়াল, আইর মাছ ধরা ও বিক্রয় আইনত দন্ডণীয়। জুলাই হতে ডিসেম্বর পর্যন্ত নয় ইঞ্চির ছোট রুই, কাতলা, মৃগেল, কালিবাউস এবং ধনিয়া মাছ ধরা নিষিদ্ধ। এসকল বিষয়ে সবাই সচেতন হলে মাছের উৎপাদন অনেক বেড়ে যাবে।

প্রিন্স, ঢাকা