সড়ক-মহাসড়কের পাশে পশুর হাট বসানো যাবে না: কাদের

নির্বিঘ্নে যাতায়াতের পাশাপাশি আসন্ন ঈদ-উল-আযহার সময় সড়ক-মহাসড়কে দুর্ঘটনা কমানোই হবে অগ্রাধিকার। এ লক্ষ্যে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের তদারকি ঈদের পরেও জোরদার থাকবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, মানুষের নির্বিঘ্নে বাড়ি ফেরা নিশ্চিত করতে সড়ক-মহাসড়কের পাশে কোন ধরণের কোরবানীর পশুর হাট বসানো যাবে না। এছাড়া ফিটনেসবিহীন গাড়িতে কোরবানীর পশু পরিবহন করা যাবে না। এ সকল পরিবহন উৎসমুখে বন্ধ করতে হবে। এ ছাড়া উল্টোপথে গাড়ি চালানো, ব্যাটারিচালিত রিক্সাসহ অযান্ত্রিক যানবাহন চলাচল বন্ধে আরও কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান। খবর পিআইডি

মন্ত্রী মঙ্গলবার মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় দ্বিতীয় মেঘনা সেতুর নির্মাণ সাইটে আসন্ন ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের সাথে এক সভায় এসব কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, ঈদের আগে তিনদিন মহাসড়কে ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। পাশাপাশি ঈদের আগের চারদিন ও পরের চারদিন সারা দেশে সিএনজি স্টেশনসমূহ চব্বিশ ঘণ্টা খোলা থাকবে।

মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে নজরদারী বাড়াতে হাইওয়ে পুলিশকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে এ সময় তিনি জানান। এছাড়া ঈদ পরবর্তী সময়ে মহাসড়কে পরিবহন ব্যবস্থাপনার সমন্বয়ে হাইওয়ে পুলিশ ও জেলা পুলিশকে আরও কার্যকর ভূমিকা পালনের অনুরোধ জানান তিনি।

সভায় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মোঃ নজরুল ইসলাম, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী ইবনে আলম হাসান, বিআরটিএ’র চেয়ারম্যান মোঃ মশিয়ার রহমান, বিআরটিসি’র চেয়ারম্যান ফরিদ আহমদ ভূঁইয়া, হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজি আতিকুল ইসলাম, ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী জেলাসমূহের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার, বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ’র প্রতিনিধি, পরিবহণ মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দসহ সংশ্লিষ্ট অংশীজন উপস্থিত ছিলেন।

প্রিন্স, ঢাকা নিউজ২৪