ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা বহিস্কার

নিউজ ডেস্ক: ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির ঘটনায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে স্থায়ী বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতিতে সম্পৃক্ততার সত্যতা পাওয়ায় বহিষ্কার হওয়া আকিব বিন বারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষার্থী ও জবি ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।

বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিঞ্জপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২২ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ফার্মেসি বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী আকিব বিন বারীকে (আইডি-বি ১৩০৬০৬০২০) সাময়িক বহিস্কার করে এবং তাকে স্থায়ীভাবে কেন বহিস্কার করা হবে না তার লিখিত জবাব দেয়ার নির্দেশ দেয়। আকিব বিন বারী ২৮ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে লিখিত জবাব দেয়।

এতে বলা হয়, কিন্তু তার লিখিত জবাব বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কাছে বিবেচিত হয়নি। বরং এতে ভর্তি জালিয়াতিতে তার সম্পৃক্ততার অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। যা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী সুলভ আচারণ নয় এবং শৃঙ্খলা পরিপন্থী ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এ পরিপ্রেক্ষিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০০৫-এর ১১(১০) ধারার প্রদত্ত ক্ষমতাবলে সিন্ডিকেটের অনুমোদন সাপেক্ষে আকিব বিন বারীকে ১৭ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করা হয়।

জানা যায়, গত ১১ মার্চ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি দিয়ে ভর্তি হওয়ার অভিযোগে দুই শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়। তাদের স্বীকারোক্তিতে ভর্তি জালিয়াতিতে জবি শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আকিব বিন নাম উঠে আসে।

এ অভিযোগে ১২ মার্চ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ আকিব বিন বারীকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করে।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর ঢাকা ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে ১৭ জনকে আটক করা হয়। এ সময় আকিবও আটক হন।