জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি মোকাবিলা ঐক্যবদ্ধভাবে করতে হবে

সুমন, প্রিন্স: জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি মোকাবেলায় সম্প্রীতি বজায় রেখে সমন্বিতভাবে কাজ করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছে দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর ব্যবসায়িক নেতৃবৃন্দ। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে যেহেতু বাংলাদেশসহ এ অঞ্চলের দেশগুলো যথেষ্ট ঝুঁকির সম্মুখীন, তাই এসব ঝুঁকি কমানো এবং তা মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন তারা।

রবিবার সার্ক চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্টি (এসসিসিআই) এবং ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র (এফবিসিসিআই) যৌথ আয়োজনে প্যান প্যাসিফিক সোনারগাও হোটেলে ‘A Climate Resilient South Asia: Turning Climate Smart Investment Opportunities into Reality’ বিষয়ক এক সেমিনারে এসব বক্তব্য তুলে ধরা হয়।

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব আনিসুল ইসলাম মাহমুদ সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন । এফবিসিসিআই সভাপতি জনাব মো: শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন)-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসসিসিআই সভাপতি মি. রুয়ান এডিরিসিংহে, এসসিসিআই-বাংলাদেশ-এর সহ-সভাপতি জনাব মাহবুবুল আলম, সিনিয়র সহ-সভাপতি জনাব ইফতেখার আলি মালিক এবং সহ-সভাপতি-নেপাল-এর মি. চান্দি রাজ ধাকাল উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই সহ-সভাপতি জনাব মো: মুনতাকিম আশরাফ, এফবিসিসিআইয়ের পরিচালকবৃন্দ, আন্তর্জাতিক সংস্থা ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ এবং জলবায়ু বিশেষজ্ঞগণ অংশ নেন।

উদ্বোধনী অনুষ্টান শেষে Climate Investment Potential, Threat or Opportunity for Private Sector এবং ‘People’s Agenda On Climate Change’ বিষয়ে দুটো প্লেনারি সেশন অনুষ্ঠিত হয়। সেশনগুলোতে সার্কভূক্ত দেশগুলোর জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট চ্যালেঞ্জগুলো তুলে ধরা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাননীয় মন্ত্রী জনাব আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন যে, দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম ঝুঁকিপূর্ণ দেশ হিসেবে বাংলাদেশ সম্ভাব্য ঝুঁকি মোকাবেলায় কার্যকর প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহণ করে চলেছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সৃষ্ট ঝুঁকিসমূহ মোকাবেলায় বাংলাদেশ প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি গ্রহণ করেছে। ঝুঁকি হ্রাসে সরকরের নেয়া পদক্ষেপগুলো বিশ্বে প্রশংসিত হচ্ছে বলে মাননীয় মন্ত্রী উল্লেখ করেন। এছাড়াও তিনি জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ঠ পরিস্থিতিতে কৃষি গবেষণার ওপর প্রয়োজনীয় বিনিয়োগের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই সভাপতি জনাব মো: শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন) বলেন যে, জলবায়ু পরিবর্তন ২১ শতকের অন্যতম বড় এক চ্যালেঞ্জ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। অন্যতম ঝুঁকিপ্রবণ অঞ্চল হিসেবে দক্ষিণ এশিয়ায় দারিদ্র এবং খাদ্য নিরপত্তার জন্য এটি একটি বড় চ্যালেঞ্জ বলে তিনি উল্লেখ করেন। জনাব মহিউদ্দিন জানান যে, বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে বাংলাদেশই প্রথম দেশ হিসেবে ‘জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ড’ গঠন করেছে।

এফবিসিসিআই সভাপতি উল্লেখ করেন যে, দেশের ব্যবসায়ি সম্প্রদায় নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবস্থা প্রবর্তন, পরিবেশে-বান্ধব ও সবুজ কারখানা গড়ে তোলা এবং পরিবেশ সুরক্ষা ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনার দিকটিতে খেয়াল রেখে দেশের ‘অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলো’ স্থাপন করার ক্ষেত্রে তাদের সহায়তা অব্যাহত রেখেছে। বিশ্বের ১০টি শীর্ষ ‘সবুজ কারখানার’ ৭টিই বাংলাদেশে অবস্থিত বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এসসিসিআই সভাপতি মি. রুয়ান এডিরিসিংহে, এসসিসিআই সহ-সভাপতি জনাব মাহবুবুল আলম এবং এসসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি জনাব ইফতেখার আলি মালিকও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।