ভারতে তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জির মহাজোট পরিকল্পনা

নিউজ ডেস্ক:  আগামী লোকসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) জোটকে পর্যুদস্ত করতে মহাজোটের পরিকল্পনা নিয়ে তৎপরতা চলছে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেসের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কংগ্রেসকে বাদ দিয়ে ফেডারেল ফ্রন্টের প্রস্তাব দিয়েছে। এই লক্ষ্যে কলকাতায় বিজেপিবিরোধী দলগুলোকে নিয়ে বিশাল সমাবেশ করতে চাইছেন মমতা।

বৃহস্পতিবার শিলিগুড়িতে মমতা বলেন, ‘শীতকালে আমরা ব্রিগেডে একটা সভা করতে চলেছি। সেখানে বিজেপিবিরোধী সব দলকে ডাকা হবে।’

মমতার ঘনিষ্ঠ সূত্রে বলছে, ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে ‘একের বিরুদ্ধে এক’ প্রার্থী দেওয়ার কৌশল নিয়ে বিজেপিকে মোকাবিলা করতে চাইছেন মমতা। কয়েক মাস ধরেই সর্বভারতীয় স্তরে এই বার্তা দেওয়া হয়েছে। মমতা প্রস্তাব দিয়েছেন, যে রাজ্যে যে দল শক্তিশালী, সেখানে সেই দলকে প্রাধান্য দিয়ে বিরোধী জোটের আসনসংখ্যা বাড়িয়ে নেওয়া উচিত।

এর মধ্যেই মমতা বিজেপিবিরোধী দলের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বেশ কয়েক দফা আলোচনা করেছেন। তবে সিপিআইএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি সাফ জানিয়েছেন, মমতার মহাজোট পরিকল্পনায় তাঁর দল থাকছে না। কলকাতায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, লোকসভা নির্বাচনের আগে বিজেপিবিরোধী কোনো মহাজোটে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রীর সঙ্গে থাকবে না সিপিআইএম।

মমতার বিজেপি-বিরোধিতার বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন সীতারাম ইয়েচুরি। তিনি জানান, নির্বাচনের আগে জাতীয় স্তরে এ ধরনের কোনো সার্বিক মহাজোটের সম্ভাবনা নেই। তবে তিনি মনে করেন, নির্বাচনের পরে এ ধরনের জোট হতে পারে।

ইয়েচুরি বলেছেন, জাতীয় স্তরে মহাজোট না হলেও প্রতিটি রাজ্যে আঞ্চলিক স্তরে ধর্মনিরপেক্ষ দলগুলোর জোট হওয়া সম্ভব।

সিপিআইএমের সাধারণ সম্পাদক ইয়েচুরি আরও বলেন, ২০০৪ সালের মতো বিজেপিবিরোধী কোনো সরকার তৈরি হলে সিপিআইএম তাকে বাইরে থেকে সমর্থন দেবে।