গাইবান্ধায় বন্ধুকযুদ্ধে ডাকাত সর্দার নিহত

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ছামছুল হক (৩৮) নামে ডাকাত সর্দার নিহত হয়েছেন।

রোববার(৮ জুলাই) ভোর রাতে গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়কের সাকোয়া ব্রিজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ছামছুল হক আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য ও একাধিক ডাকাতি মামলার আসামি ছিলেন।

ছামছুল হকের বাড়ি পলাশবাড়ী উপজেলার বেতকাপা ইউনিয়নের সাকোয়া গ্রামে।

আজ সকাল সাড়ে সাতটায় গাইবান্ধা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খান মো. শাহারিয়ার মুঠোফোনে বলেন, গাইবান্ধা সদর ও সাদুল্যাপুর থানা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে শনিবার দুপুরে ঢোলভাঙ্গা বাজার এলাকা থেকে ছামছুল হককে গ্রেপ্তার করা হয়। ছামছুল হকের দেয়া তথ্য মতে অস্ত্র উদ্ধার ও তার অন্য সঙ্গীদের ধরতে পুলিশ আজ ভোর রাতে তাকে নিয়ে তার নিজ গ্রামে অভিযানে যাওয়া যায়। এ সময় ছামছুলকে ছিনিয়ে নিতে তার সঙ্গীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এতে আত্মরক্ষার্থ পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এক পর্যায়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে ছামছুল হক গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি আরও জানান, ছামছুল হক আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য। তার বিরুদ্ধে সদর, সাদুল্যাপুর ও পলাশবাড়ী থানাসহ বিভিন্ন থানায় হত্যা ও ডাকাতিসহ ১২টি মামলা রয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে ডাকাতি করে আসছিলেন ছামছুল হক। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হলে পরিবারের কাছে তার লাশ হস্তান্তর করা হবে। এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

প্রিন্স, ঢাকা