মেয়াদ উত্তীর্ণ সরিষা তেলের লেবেল পরিবর্তন করে বাজারজাত

চাটমোহর প্রতিনিধি: পাবনার চাটমোহরে “তীর সরিষার তেল” এর মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পর সেই তেলের বোতলের পুরাতন লেবেল পরিবর্তন করে নতুন মেয়াদের লেবেল লাগিয়ে আবারো বাজারজাত করা হচ্ছে। এতে করে জন স্বাস্থ্য হুমকির মুখে পড়েছে।

বিশিষ্ট ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান নিতাই এন্ড সন্স এই কারবার চালিয়ে যাচ্ছে। পৌর শহরের বালুচর মহল্লার নিতাই চন্দ্র দাসের মালিকানাধীন এই প্রতিষ্ঠানে পুরাতন বাজারের একটি গোডাউনে গিয়ে দেখা যায় ‘তীর সরিষার তেলের’ ২০১৪ সালে মেয়াদ উত্তীর্ণ লেবেল পরিবর্তন করে কর্মচারীরা নতুন মেয়াদের লেবেল লাগাচ্ছে। সাংবাদিকদের দেখামাত্র কর্মচারী ২ শতাধিক পুরাতন লেবেল পলিথিন ব্যাগে দ্রুত তুলে নিয়ে যায়। পুরাতন প্যাকেট সরিয়ে ফেলা হয়।

শুধু তাই নয়, বিকেল নাগাদ ওই গোডাউনের সমস্ত মেয়াদ উত্তীর্ণ মালামাল ও নিন্মমানের পামওয়েল, কোয়ালিটি সোয়াবিন তেল সরিয়ে ফেলা হয়। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নিতাই দাসের একাধিক গোডাউনে এই দু’নম্বরী কাজ চলছে। তারা নিন্মমানের পামওয়েল দিয়ে সোয়াবিন তেল তৈরি করে বাজারজাত করে থাকে।

এছাড়া সোয়াবিন আর মেয়াদ উত্তীর্ণ সরিষার তেলের লেবেল পরিবর্তন করে বাজারজাত করে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। এই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটি উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের দোকানে এবং পার্শ্ববর্তী উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের দোকানে মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্যসামগ্রী পাইকারী বিক্রি করছে। এতে করে জনস্বাস্থ্য চরম হুমকির মুখে পড়েছে। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে এই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন সচেতন মহল।

এ ব্যাপারে পৌরসভার সেনেটারী ইন্সপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ দুলাল জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ খবর নিয়ে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে। ইউএনও স্যারকে জানিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হবে।

এ ব্যাপারে নিতাই এন্ড সন্স কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলতে গেলে, তারা ডোন্ট কেয়ার ভাব দেখিয়ে জানায়, এ নিয়ে তাদের কেউ কিছুই করতে পারবে না।