শান্তিপূর্ণ ভাবে চলছে ভোট গ্রহণ

নিউজ ডেস্ক: সব শঙ্কা উড়িয়ে দিয়ে উৎসবের আমেজে ভোট চলছে গাজীপুরে। ভোটকেন্দ্রগুলোতে বিরাজ করছে স্বস্তির পরিবেশ। গাজীপুরের ভোটার, স্থানীয় রাজনীতিক ও দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা বলছেন, সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট হচ্ছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা নেই। ভোটাররা নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারছেন।

মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। সকাল ৮টা থেকে ১১টা পর্যন্ত কয়েকটি কেন্দ্র সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, ভোটারদের দীর্ঘ লাইন। নারী ভোটারদেরও উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো।

ভোটের প্রথম তিন ঘণ্টায় দক্ষিণ সালনার ১৮, ১৯ ও ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের ৯টি কেন্দ্র সরেজমিনে ঘুরে স্বস্তির ভোটের এ চিত্র দেখা যায়।

দক্ষিণ সালনার টেকন পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রিসাইডিং অফিসার ডা. আনিছুর রহমান বলেন, ‘প্রত্যাশা অনুযায়ী উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট হচ্ছে।’

এ কেন্দ্রের বিএনপি প্রার্থীর এজেন্ট নজরুল ইসলাম বলেন, ‘তারা ভোটের আগে নানা শঙ্কায় ছিলেন। কিন্তু আজ সকালে নির্বিঘ্নে তারা কেন্দ্রে এসে ভোট দিচ্ছেন। কোনো বাধা নেই। কোনো শঙ্কাও নেই।’

২০১৩ সালে গঠিত গাজীপুর সিটি করপোরেশনের আয়তন ৩২৯ বর্গকিলোমিটার। বর্তমানে ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৬। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার পাঁচ লাখ ৬৯ হাজার ৯৩৫ ও নারী ভোটার পাঁচ লাখ ৬৭ হাজার ৮০১ জন। ওয়ার্ড সংখ্যা ৫৭টি। যার মধ্যে ১৯টি সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ড।

গত ৩১ মার্চ গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। সে অনুযায়ী গত ১৫ মে একসঙ্গে দুই সিটি করপোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা ছিল। কিন্তু গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সীমানা নিয়ে সাভার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. সুরুজের এক মামলায় আদালত গাজীপুর সিটি নির্বাচনের ওপর স্থগিতাদেশ দেন। পরে নির্বাচন কমিশনের আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে সে বাধা কেটে যায়। ইসি ২৬ জুন নতুন করে গাজীপুরে নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করে।

রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় জানায়, এবার ৪২৫টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে। নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে দায়িত্ব পালন করছেন আট হাজার ৭০৮ জন নির্বাচনী কর্মকর্তা। প্রতিটি কেন্দ্রে একজন করে মোট ৪২৫ জন প্রিসাইডিং অফিসার দায়িত্ব পালন করছেন।