ম্যারাডোনাও কাঁদলেন

নিউজ ডেস্ক: নবাগত দল আইসল্যান্ডের সাথে ১-১ গোলে ড্র’র পর রাশিয়া ফুটবল বিশ্বকাপে ‘ডি’ গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার কাছে ৩-০ গোলে হারের লজ্জা পায় দু’বারের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। ফলে শেষ ষোলোতে আর্জেন্টিনার যাওয়ার পথ অনেকাংশেই কঠিন হয়ে গেলো।
ক্রোয়েশিয়ার কাছে হার মেনে নিতে পারেননি আর্জেন্টিনার সমর্থকরা। ঠিকই তেমনি মেনে নিতে পারেননি আর্জেন্টিনাকে ১৯৮৬ সালে দ্বিতীয় ও সর্বশেষ বিশ্বকাপ এনে দেয়া অধিনায়ক দিয়াগো ম্যারাডোনা।

ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ৩-০ গোলে হারের পর গ্যালারিতে কাঁদতে দেখা গেছে ম্যারাডোনাকে। উত্তরসূরিদের এমন বড় পরাজয় মেনে নিতে পারেননি ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক। তাই গ্যালারিতে বসে মেসিদের খেলা দেখা শেষে কাঁদেন ম্যারাডোনা।

ম্যাচ শুরুর আগে বেশ হাসিখুশীই ছিলেন ম্যারাডোনা। এমনকি ৫৩ মিনিটে আর্জেন্টিনা পিছিয়ে যাবার পরও চিন্তিত দেখা যায়নি ম্যারাডোনাকে। কিন্তু ৮০ মিনিটে আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় গোলের পরই রেগে যান। মাথায় হাত দিয়ে, চেয়ারে বাড়িয়ে দিয়ে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। এরপর ম্যাচ শেষে কাঁদলেন ম্যারাডোনা। কারণ, ততক্ষণে হারের লজ্জা বরণ করে নিয়েছে আর্জেন্টিনা।

ম্যাচ শুরু থেকে ম্যারাডোনার প্রতি স্পট লাইট ছিলো টিভি ক্যামেরার। ম্যাচ শেষে ম্যারাডোনার কান্না ও চোখের পানি মোছার চিত্র দেখিয়েছে টিভি ক্যামেরা।

১৯৯০ বিশ্বকাপের ফাইনালে জার্মানির কাছে হেরে যাওয়ার পর কেঁদেছিলেন ম্যারাডোনা। সেই দৃশ্য এখন বিশ্বকাপের আর্কাইভে জ্বল জ্বল করছে। গত বিশ্বকাপের ফাইনালে আর্জেন্টিনার হারের পর এবং গতরাতে ক্রোয়েশিয়ার কাছে বিধ্বস্ত হবার পর আবারো কাঁদলেন ম্যারাডোনা।