তিন সিটিতে জোটের পক্ষে বিএনপির একক প্রার্থী

নিউজ ডেস্ক : অবাধ ও নিরপেক্ষ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে আন্দোলন এবং কর্মকৌশল নিয়ে বিএনপি আলোচনা চলছে। সোমবার দলের সিনিয়ির নেতারা দীর্ঘ তিন ঘন্টা বৈঠক করেছেন গুলশান অফিসে। নেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, তারা দাবি আদায়ে কঠোর আন্দোলন করা ছাড়া বিকল্প কোন পথ দেখছেন না।

তবে এই মুহূর্তে কঠোর আন্দোলনে না গিয়ে ধাপে ধাপে চূড়ান্ত আন্দোলনে যেতে চাইছে বিএনপি। তাদের ধারণা, এখন কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করলে খুব একটা ভালো ফল হবে না। কেবল নেতাকর্মীদের নতুন করে মামলা, নির্যাতন আর হয়রানির শিকার হতে হবে। বাড়বে গ্রেফতারের সংখ্যা। একারণে কর্মসূচি নির্ধারণে কৌশলী হয়ে অগ্রসর হতে চায় দলটি। দলীয় সুত্র জানায়, সব দলের অংশগ্রহণে অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন এবং খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আগামী জুলাইয়ে ঢাকায় একটি মহাসমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। এই মহাসমাবেশ থেকে পরবর্তী কঠোর আন্দোলনের কর্মসুচি দেয়া হবে। তার আগে আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়ার জন্য কেন্দ্রীয় নেতারা দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দিকনির্দেশনামূলক বার্তা পৌঁছে দিতে সারা দেশ সফর করবেন।

এদিকে খুলনা সিটি করপোরেশনের ভোটের পর বিএনপি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো আগামী ২৬ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া গাজীপুর সিটি নির্বাচন দেখে রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে যাবে কি না সে সিদ্ধান্ত নেবে। গাজীপুরে যদি সুষ্ঠু ভোট না হয় তবে বরিশাল, রাজশাহী ও সিলেট নির্বাচন বয়কটের প্রাথমিক সিদ্ধান্তও ছিল। তবে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে তারা। এই তিন সিটির নির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি। এই লক্ষ্যে আজ বুধবার থেকে এই তিন সিটির দলীয় মনোনয়নপত্র বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটি।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী জানান- রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকে মেয়র পদে প্রার্থী হতে আগ্রহীদের আজ বুধবার মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে হবে। ঢাকার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টার মধ্যে ১০ হাজার টাকার বিনিময়ে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা যাবে। আগামী ২১ জুন আরো ২৫ হাজার টাকা জামানতসহ মনোনয়নপত্র জমা দিতে হবে।

জানা গেছে, সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সিনিয়র নেতাদের বৈঠকে বিশেষ করে আসন্ন গাজীপুর সিটি (গাসিক) নির্বাচন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। কোন কৌশলে নির্বাচনী প্রচারণা চালানো হবে ও ‘ভোট ডাকাতি’ মোকাবেলা করা হবে তা নিয়ে সভায় আলোচনা হয়। বৈঠকের পর রাজশাহী ও সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়রদ্বয় দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সাথে দেখা করেন। একজন নেতা জানান, শুধু বরিশাল সিটিতে মেয়র প্রার্থী পরিবর্তন হতে পারে। রাজশাহী এবং সিলেটে প্রার্থী পরিবর্তনের সম্ভাবনা কম।

বিএনপির বৈঠকসুত্র জানায়, সমপ্রতি লন্ডনে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সাথে দেখা করে এসে এই প্রথম স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সাথে বৈঠক করলেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি তারেক রহমানের সঙ্গে আলোচনা এবং সিদ্ধান্ত সমুহ বৈঠকে তুলে ধরেন। বৈঠকে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মাহবুবুর রহমান, ড. আবদুল মঈন খান, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী এবং ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে আন্দোলন, তিন সিটি নিবাচন, দেশের চলমান পরিস্থিতি, জোটের অভ্যন্তরীণ বিষয় ও কারাবন্দি খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে কথা বলতে বৈঠক করবেন ২০ দলের নেতারা। বুধবার বেলা ১১টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপরসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ বৈঠক হবে।

ঈদুল ফিতরের পর এটা ২০ দলের প্রথম বৈঠক হতে যাচ্ছে। তিন সিটিতে জোটের পক্ষে একক প্রার্থীর জন্য নির্বাচনী প্রচারণাসহ বেশ কিছু বিষয়ে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সারাদেশে বিএনপির বিক্ষোভ : এদিকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিত্সার দাবিতে আগামী ২১ জুন বৃহস্পতিবার সারাদেশে জেলা ও মহানগরীতে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল মঙ্গলবার নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই ঘোষণা দেন।