গোলাগুলিতে ডাকাত সুমনের রাজত্বের অবসান

কুমিল্লা প্রতিনিধি: কুমিল্লায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ হয়ে মো. সুমন (৩৫) নামের এক ডাকাত নিহত হয়েছে। শুক্রবার রাত সোয়া ১টার দিকে জেলার দেবিদ্বার-চান্দিনা সড়কের ছেচরাপুকুরিয়া রাস্তার মাথায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত সুমন উপজেলার কুরুইন গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে। পুলিশের দাবি সে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য ছিল।

দেবিদ্বার থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, একদল ডাকাত দেবিদ্বার-চান্দিনা সড়কের ছেচরাপুকুরিয়া এলাকার রাস্তার মাথায় ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে পৌঁছে ডাকাতদের আটকের চেষ্টা করে। এসময় সশস্ত্র ডাকাত দল পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এসময় পুলিশ ১৯ রাউন্ড শটগানের গুলি চালিয়েছে। এতে গুলিবদ্ধ হয়ে সুমন গুরুতর আহত হয়। আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরো জানান, কুখ্যাত ডাকাত সুমনের বিরুদ্ধে ১৭টি মামলা রয়েছে। সে এলাকায় আসলেই কোন না কোন গ্রামে ডাকাতি হতোই। ডাকাতির পর ধর্ষণই ছিল সুমনের নেশা। ওই অভিযানে থানার এসআই আসাদ, এএসআই ইনতাজ ও কনস্টেবল মনির আহত হয়েছে। এসময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১ রাউন্ড কার্তুজসহ একটি পাইপগান, কয়েকটি মুখোঁশ, ছোরা ও শাবল উদ্ধার করেছে বলেও জানিয়েছেন ওসি।

এ বিষয়ে সহকারী পুলিশ সুপার শেখ মোহাম্মদ সেলিম বলেন, নিহত ডাকাত সুমনের বিরুদ্ধে দেবিদ্বার, চান্দিনা, দাউদকান্দিসহ বিভিন্ন থানায় ডাকাতি, খুন ও ধর্ষনসহ অন্যান্য অভিযোগে অন্তত ১৭টি মামলা রয়েছে। তার মৃত্যুতে এলাকাবাসীর মাঝে স্বস্থি ফিরেছে।

প্রিন্স, ঢাকা