২০১৬ সালের সিআইপিদেরকে সম্মাননা কার্ড প্রদান

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেছেন, প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রেরিত রেমিটেন্স প্রবাহের ধারাবাহিকতায় অর্থনৈতিক উন্নয়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ বিশ্বের মানচিত্রে একটি মর্যাদাপূর্ণ রাষ্ট্র হিসেবে নিজেকে তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছে। তিনি প্রবাসী বাংলাদেশিদের বৈধ চ্যানেলে রেমিটেন্স প্রেরণকারী ও বাংলাদেশি পণ্য আমদানিকারকদের পাশাপশি দেশে শিল্পক্ষেত্রে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানান।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পূর্বের যে কোনো সময়ের চেয়ে দেশে এখন শিল্পক্ষেত্রে বিনিয়োগের সুষ্ঠু পরিবেশ বিরাজ করছে। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে রেমিটেন্স-এর প্রবাহ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং বৈদেশিক রিজার্ভ বৃদ্ধি পেয়েছে। বৈধপথে রেমিটেন্স প্রেরণ করলে বৈদেশিক রিজার্ভের পরিমাণ আরো বৃদ্ধি পাবে।

মঙ্গলবার ঢাকার ইস্কাটনে ২০১৬ সালের জন্য নির্বাচিত বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (সিআইপি) অনিবাসী বাংলাদেশিদেরকে সম্মাননা কার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. নমিতা হালদার এনডিসি’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহ্রিয়ার আলম। প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশিরা বাংলাদেশের সামগ্রিক উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় অবদান রাখছেন। তিনি আরো বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে সিআইপিগণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন। অনুষ্ঠানে সিআইপিগণের পক্ষ থেকে সম্মানিত সিআইপি সংযুক্ত আরব আমিরাতের মোছাম্মৎ জেসমিন আক্তার ও মোহাম্মদ মাহাতবুর রহমান বৈধ চ্যানেলে সর্বাধিক রেমিটেন্স প্রেরণকারী (অনিবাসী বাংলাদেশি) হিসেবে বক্তব্য রাখেন। সংযুক্ত আরব আমিরাতের মোহাম্মদ সেলিম বিদেশে বাংলাদেশি পণ্য আমদানিকারক (অনিবাসী বাংলাদেশি) হিসেবে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ সরকার ২০১৬ সালের জন্য ‘বাংলাদেশে বৈধ চ্যানেলে সর্বাধিক বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী অনিবাসী বাংলাদেশি’ ক্যাটাগরিতে ২৯ জন এবং ‘বিদেশে বাংলাদেশি পণ্যের আমদানিকারক অনিবাসী বাংলাদেশি’ ক্যাটোগরিতে ছয় জনসহ ৩৫ জনকে বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (অনিবাসী বাংলাদেশি) হিসেবে নির্বাচন করা হয়েছে। তবে শিল্পক্ষেত্রে সরাসরি বিনিয়োগ ক্যাটাগরিতে কেউ আবেদন না করায় এক্ষেত্রে কাউকে সিআইপি সম্মাননা প্রদান করা যায়নি।

২০১৬ সালের নির্বাচিত বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, সংযুক্ত আরব আমিরাত হতে ১৩ জন, ওমান থেকে ছয় জন, যুক্তরাজ্য থেকে তিন জন, কাতার থেকে তিন জন এবং অস্ট্রেলিয়া, জাপান, সিঙ্গাপুর ও হংকং থেকে এক জন করে সর্বাধিক বৈধ চ্যানেলে বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী অনিবাসী বাংলাদেশি সিআইপি নির্বাচিত হয়েছে। বিদেশে বাংলাদেশি পন্য আমদানিকারক অনিবাসী বাংলাদেশি হিসেবে ছয় জন সিআইপির মধ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুই জন এবং ওমান, রাশিয়া, কুয়েত ও কাতার থেকে এক জন করে নির্বাচিত হয়েছেন।

এখানে উল্লেখ্য তিনটি ক্যাটাগরির মধ্যে শিল্পক্ষেত্রে বিনিয়োগকারী ক্যাটাগরিতে ২০ জন, বৈধ চ্যানেলে সর্বাধিক বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী ক্যাটাগরিতে ৫০জন এবং বিদেশে বাংলাদেশি পণ্য আমদানিকারক ক্যাটাগরিতে ২০জনকে সিআইপি নির্বাচন করার সুযোগ রয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের দপ্তর ও সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।