পুরোদমে জমে উঠেছে ঈদ বাজার

রাউজান প্রতিনিধি: তীব্র রোদ ও গরম এর পরও পুরোদমে জমে উঠেছে রাউজানের ঈদ বাজার। ঈদের কেনাকাটায় ব্যাস্থ নাড়ী পুরুষ ও যুবক যুবতি। সকাল ৯ট্ াথেকে রাত ১২-১টা পর্যন্ত প্রতিটি দোকানে নারী পুরুষদের ভীর লক্ষ্য করাগেছে । ১০ রমজানের পর হতে শতভাগ পুরোধমে বেচা কেনা চলছে বলে জানান ডিউ ভিজি শপিং মার্কেটের বৃহত দোয়া শাড়ীজের মালিক মোহাম্মদ আমান। এবারের ঈদ উপলক্ষে ভারতের চুন্দ্রি কাতান, চায়না সিল্ক, পাকিস্তানী জর্জেট, দেশীয় মসলিন, জামদানী, কাতান শাড়ীর চাহিদা অনেক বেশী বলে জানান আমান। এছাড়া ত্রীপিস টুপাট কুটি, পাকিস্থানী, ইন্ডিয়ান, রেডিমেট লংগ্রাওন, লং ত্রিপিচ, বম্বে গ্রাউন ও দেশীয় চাহিদা অনেক।

পাশাপাশি পাকিস্থানী, বম্বে, মিশরি ও দেশীয় পাঞ্জাবীর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। অনেক ব্যবসায়ীরা জানান, গত বছর বন্যার কারনে ঈদের বেচাকেনা কম হলেও এবার প্রথম থেকেই বেচাকেনা ভালই জমছে। ব্যবসায়ীদের মতে এবারের ব্যবসা খুব জমজমাট হচ্ছে। উপজেলার বৃহত্তর ফকিরহাট, আবছার মার্কেট, পথেরহাট, গহিরা বাজার, আমিরহাট, পাহাড়তলি, গচ্ছি নয়াহাট, রমজান আলীরহাট, সোমবাইজ্জাহাট, জিয়াবাজার, নতুন হাট, ঈসান ভট্ররহাট, জলিল নগর, মুন্সিরঘাটা, কাগতিয়া বাজার, মগদাই বাজার, দরগাহ বাজার, জগন্নাথহাট, অলিমিয়া হাট, চৌধুরীহাট, তাহের প্লাজা সহ বিভিন্ন মার্কেটে ঈদের বেচাঁ-কেনা চলছে।

তবে ফকিরহাটের বৃহত ডিউ ভিজি শপিং মার্কেটে ক্রেতাগণের ভীরে মার্কেট ভড়পুর। প্রচুর বেচাকেনা হচ্ছে বলে জানান বাটা স্বত্বাধিকারী মফিজুল ইসলাম সিকদার। ফকিরহাট ব্যবসায়ী সমিতির পক্ষ থেকে দোকানে ঈদ বিক্রয় উৎসবের মাধ্যমে র‌্যাফেল ড্র ব্যবস্থা করা হলেও তা জমছেনা। যাতে কেউ ছড়া মুল্য নিয়ে কাষ্টমারকে হয়রানী না করে সে জন্য প্রতিটি দোকানদারকে ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট জোনায়েদ কবির সোহাগ সতর্ক করে দিয়ছেন।

ডিউর দুবাই সুজের স্বত্তাধিকারী মুঃ মোরশেদ ও মৌলানা তাজ মুহাম্মদ রেজভী জানান, চাহিদা মত বেচা-কিনা হচ্ছে। যথেষ্ট পরিমান কাস্টমার প্রতিদিন দোকানে ভীড় করছে। ডিউ মার্কেট পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক ওসমান গনী রানা, আনোয়ার মোস্তফা ইমরান জানান, মার্কেটে সকল ধরনের নিরপত্তা দেওয়া হচ্ছে। তবে এরপরও বেশির ভাগ কাস্টমার হাটহাজারী, চট্টগ্রাম সহ ও ফটিকছড়ির আজাদী বাজার মুখী।

রাউজান থানার ওসি কেফায়াত উল্লাহ জানান, যাতে ঈদ মার্কেটে কোন ধরনের বিশৃ্খংলা না হয় সে জন্য পর্যাপ্ত পুলিশ ডিউটি করতেছে। তিনি জানান, পুরুষ মহিলা সকলেই নিবিগ্নে ঈদের কেনাকেটা করতে পারে সে ব্যবস্থা আমরা নিয়েছি। গতকাল ৪ঠা জুন এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাউজানের ঈদের কেনাকেটায় কোন বিশৃ্খংলার খবর পাওয়া যায়নি। শান্তিভাবেই ঈদের কেনাকেটা চলছে। বলা যায় ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে জমে উঠেছে রাউজানের ঈদ বাজার।

প্রিন্স, ঢাকা