ঈদে নৌপথে বিশেষ সার্ভিস শুরু ১৩ জুন

নিউজ ডেস্ক: ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে ঘরমুখো যাত্রীদের জন্য নৌযানের বিশেষ সার্ভিস শুরু হবে আগামী ১৩ জুন।

রাষ্ট্রীয় নৌযান সংস্থা বিআইডব্লিউটিসি এবং বেসরকারি লঞ্চ মালিক সমিতি একই দিন বিশেষ সার্ভিস শুরু করবে, যা অব্যাহত থাকবে ঈদ-পরবর্তী এক সপ্তাহ।

বিশেষ সার্ভিস চলাকালে বেসরকারি লঞ্চ মালিকদের যাত্রী জিম্মির সিন্ডিকেট ‘রোটেশন প্রথা’ থাকবে না। ঈদের আগে ঢাকা থেকে এবং ঈদের পর বরিশাল থেকে প্রতিদিন কমপক্ষে ১৫টি লঞ্চ বিপরীত গন্তব্যের উদ্দেশে যাত্রা করবে।

রাষ্ট্রীয় নৌযান সংস্থা বিআইডব্লিউটিসিও নিয়মিত একটি জাহাজের সঙ্গে অতিরিক্ত বিশেষ সার্ভিসের জাহাজ থাকায় প্রতিদিন দুটি করে জাহাজ বিপরীত গন্তব্যের উদ্দেশে যাত্রা করবে।

বিআইডব্লিউটিসির বরিশাল দপ্তরের উপমহাব্যবস্থাপক সৈয়দ আবুল কালাম আজাদ জানান, তাদের সংস্থার ঈদের বিশেষ সার্ভিসের সিডিউল এরই মধ্যে প্রকাশ করা হয়েছে। সংস্থার ছয়টি জাহাজেই বিশেষ সার্ভিসে যাত্রী পরিবহনে থাকবে। জাহাজগুলো হলো- পিএস টার্ন, পিএস মাহসুদ, পিএস লেপচা, পিএস অস্ট্রিচ, এমভি মধুমতি এবং এমভি বাঙ্গালী।

বিআইডব্লিউটিসি সূত্রে জানা গেছে, ঈদের আগে ১৩, ১৪ ও ১৫ জুন প্রতিদিন দুটি করে জাহাজ ঢাকা থেকে দক্ষিণাঞ্চলের উদ্দেশে ছাড়বে। এর মধ্যে কোনো জাহাজ বরিশাল, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, মোরেলগঞ্জ হয়ে খুলনা পর্যন্ত যাবে। আবার কোনো জাহাজ মোরেলগঞ্জ পর্যন্ত যাত্রী পরিবহন করবে। ঈদের পর কর্মমুখী যাত্রীদের কর্মস্থলে ফেরাতে ১৮, ১৯, ২২ ও ২৩ জুন প্রতিদিন দুটি করে জাহাজ বরিশাল থেকে ঢাকায় যাবে।

লঞ্চ মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় সদস্য ও সুন্দরবন নেভিগেশন কোম্পানির চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু সমকালকে বলেন, ঢাকা থেকে দক্ষিণাঞ্চলের সব রুটে বিশেষ সার্ভিস শুরু করা হবে ১৩ জুন। ঢাকা-বরিশাল রুটে মোট ১৮টি লঞ্চ রয়েছে। প্রতিদিন কমপক্ষে ১৫টি লঞ্চ ঈদের আগে ঢাকা থেকে বরিশালে যাবে এবং ঈদের পরে বরিশাল থেকে ঢাকায় যাবে।

তিনি আরও জানান, ২০ রমজান থেকে ঢাকা বরিশাল রুটে কেবিন যাত্রীদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে।