আইপিএলের ফাইনালে সাকিবের হায়দরাবাদ

নিউজ ডেস্ক: আইপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ১৩ রানে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে সাকিব আল হাসানের সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৭৪ রান করে হায়দরাবাদ। জবাবে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৬১ রানে থামে কলকাতার ইনিংস।

গ্রুপ পর্বে শীর্ষে থাকলেও প্রথম কোয়ালিফাইং ম্যাচে মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংসের কাছে হেরে ফাইনালে যাওয়া অনেকটাই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল হায়দরাবাদের জন্য। তবে সেই অনিশ্চিয়তাকে দূরে ঠেলে দিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বপ্ন দেখছে দলটি।

শুক্রবার ইডেন গার্ডেনে কলকাতা অধিনায়ক দিনেশ কার্তিকে আমন্ত্রণে প্রথমে ব্যাট করতে নামে হায়দরাবাদ। দুই ওপেনার ঋদ্ধিমান সাহা আর শিখর ধাওয়ানের গুরুত্বপূর্ণ অবদান। মাঝে দলের প্রয়োজন বুঝে ব্যাটিং করেন সাকিব আল হাসান। শেষে ব্যাটে রীতিমতো ঝড় তুলেন রশিদ খান। সবমিলিয়ে ফাইনালে উঠার লড়াইয়ে কলকাতার সামনে ১৭৫ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্যই ছুঁড়ে দিয়েছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৭৪ রান করে তারা।

ধাওয়ান ২৪ বলে ৩৪ রান করে আউট হন। ঋদ্ধিমান করেন ২৭ বলে ৩৫। এরপর দলের প্রয়োজনে দারুণ একটি ইনিংস খেলেছেন সাকিব। ২৪ বলে ৪ বাউন্ডারিতে ২৮ রান করে নন-স্ট্রাইকিং এন্ডে থেকেও দুর্ভাগ্যজনক রানআউটের শিকার হন বাংলাদেশি অলরাউন্ডার।

পরের সময়টায় আরও কয়েকটি উইকেট হারিয়ে বেশ বিপদে পড়ে গিয়েছিল হায়দরাবাদ। দেড়শ করাই কঠিন হয়ে পড়েছিল একটা সময়। শেষদিকে এসে দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে সমর্থকদের হতাশা কাটিয়ে দিয়েছেন আফগানিস্তানের রশিদ খান। বোলিংয়ে বিখ্যাত হওয়া এই লেগস্পিনার পুরোদুস্তোর ব্যাটসম্যান হয়ে দলকে চ্যালেঞ্জিং পুঁজি এনে দিয়েছেন। মাত্র ১০ বলে ২ বাউন্ডারি আর ৪ ছক্কায় হার না মানা ৩৪ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।

কলকাতার পক্ষে ৪ ওভারে ২৯ রানে ২টি উইকেট নিয়েছেন কুলদ্বীপ যাদব।

১৭৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভালেই সূচনা করে কলকাতা নাইট রাইডার্স। ওপেনার ক্রিস লিন ৩১ বলে ৪৮ রান করেন। এছাড়াও সুনিল নারিন ২৬,নিতিশ রানা ২২ আর শুভমান গিল করেন ৩০ রান। তবে সাকিব-রশিদদের নিয়মিত বোলিংয়ে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৬১ রানেই থেমে যেতে হয় স্বাগতিকদের।

ব্যাট হাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার পাশাপাশি বল হাতেও সপ্রতিভ ছিলেন বাংলাদেশের সাকিব। ৩ ওভার বল করে উইকেট নিয়েছেন ১টি। নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে মাত্র ৫.৩৩ ইকোনমি রেটে ১৬ রান দিয়েছেন তিনি।

আগামী রবিবার মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে শিরোপা জেতার মুখোমুখি হবে চেন্নাই সুপার কিংস ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।