সরকার ক্ষুধামুক্ত বাংলাদেশ গড়তে কাজ করছে: মোশাররফ

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গঠনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গৃহীত সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প হচ্ছে ‘একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প’। এ প্রকল্পের মাধ্যমে ২০২০ সালের মধ্যে গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি বাড়িকে উৎপাদনের কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে গড়ার লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে।

মন্ত্রী আজ রাজধানীর কাকরাইলে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর (ডিপিএইচই) মিলনায়তনে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের ‘উপজেলা সমন্বয়কারী সম্মেলন ২০১৮’-এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

প্রকল্পের পরিচালক আকবর হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মোঃ মসিউর রহমান রাঙ্গাঁ এবং পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব এস এম গোলাম ফারুক। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড (বিআরডিবি)-এর মহাপরিচালক মুহম্মদ মউদুদউর রশীদ সফদার, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর (ডিপিএইচই)-এর প্রধান প্রকৌশলী মোঃ রশিদুল হক ও পল্লী উন্নয়ন একাডেমির (আরডিএ) মহাপরিচালক এম এ মতিন।

মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষুধামুক্ত বাংলাদেশ গড়তে কাজ করছে। দেশের অতি দরিদ্র জনগণকে স্বাবলম্বী করার জন্য প্রধানমন্ত্রী ক্ষুদ্র সঞ্চয়ের মাধ্যমে প্রতিটি পরিবার যাতে উৎপাদনমুখী হিসেবে পরিণত হয় সে লক্ষ্যে এ প্রকল্প উপহার দিয়েছেন। একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সুবিধা প্রতিটি দরিদ্র পরিবারে পৌঁছে দিতে সরকার পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেছে। তিনি আরো বলেন, প্রকল্পের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ মেধা, যোগ্যতা ও কর্মদক্ষতার ভিত্তিতে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে আত্মীকৃত হবেন। এ জন্য সরকার আইনানুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। তিনি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগ একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের শতভাগ সুবিধা জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নির্দেশনা দেন। পরে মন্ত্রী ‘উপজেলা সমন্বয়কারী সম্মেলন ২০১৮’-এর উদ্বোধন করেন।

প্রিন্স, ঢাকা নিউজ২৪