গণতন্ত্রের লিডার খালেদ জিয়া: ফকরুল

নিউজ ডেস্ক: মাদকবিরোধী অভিযানের নামে ক্রসফায়ার দিয়ে শুধু মাত্র বিরোধী পক্ষকে ঘায়েল করার জন্য বা একবারেই নির্মূল করার জন্য এই সরকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, এই ক্রসফায়ার নিয়ে দেশের মানুষের মনে বিভিন্ন প্রশ্ন সৃষ্টি হয়েছে। এমন একটা সময় যখন নির্বাচন সামনে ও সরকারের শেষ বছর তখন দেশে একটা যুদ্ধ ঘোষণা হয়েছে।

আজ বুধবার সকালে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ঠাকুরগাঁও শহরের কালীবাড়িতে তার বাসায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, আমরাও মাদকবিরোধী অভিযান চাই। তবে এটা অরাজনৈতিক হতে হবে। মাদক বিরোধী অভিযানের নামে ক্রসফায়ার দিতে হবে এমনটি নয়। আমরা আগেও বলেছি তাদের আইনের আওতায় এনে বিচার করতে হবে। কিন্তু যে সব যুক্তি দাড় করা হচ্ছে সেগুলো কোনো সভ্য গণতান্ত্রিক দেশে যুক্তি বলে বিবেচিত হওয়ার কথা নয়।

গাজীপুরের নির্বাচন নিয়ে আলমগীর বলেন, গাজীপুরে যে এসপি আছে সে একজন চিহ্নিত আওয়ামী লীগার। ওই এসপির আওতায় সুষ্ঠ ও আবাধ নির্বাচন সম্ভব না। সেই এসপি অসখ্য বিএনপির নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে নির্বাচনের পরিবেশ ধ্বংস করেছে।

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া বিএনপি নির্বাচনে যাবে না উল্লেখ করে মহাসচিব বলেন, গণতন্ত্রের লিডার খালেদ জিয়া। তাকে জেলে রেখে, নির্বাচন করতে না দিয়ে নির্বাচন কোনোদিন সুষ্ঠু হবে না। এই দেশে এখন গণতন্ত্রের লেশ মাত্র নাই, জনগণের অধিকার নাই। তাই সবকে ঐক্যবন্ধ হতে হবে এবং সুষ্ঠ নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে।

সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গণতন্ত্র উদ্ধার ও মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য, দেশের প্রয়োজনে আসুন আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হই।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি নুর এ শাহদাৎ স্বজন, আবু তাহের দুলাল, জেলা বিএনপির কোষাধ্যক্ষ শরিফুল ইসলাম, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি কায়েস প্রমুখ।