জনগণের সেবা সহজীকরণ করতে হবে

বিদ্যমান সরকারি সুযোগ সুবিধা কাজে লাগিয়ে জনগণের সেবা সহজীকরণ করতে হবে। নাগরিকদের সময়, ব্যয় এবং পরিদর্শনের পরিমাণ কমিয়ে সরকারিসেবা জনগণের নিকট পৌঁছে দিতে নতুন নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। এর মাধ্যমে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের নাগরিকদের আস্থা ও সন্তুষ্টি অর্জন করা সম্ভব।

ধর্মসচিব মো. আনিছুর রহমান ২১ মে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত দু’দিনব্যাপী ‘নাগরিক সেবায় উদ্ভাবন’ বিষয়ক কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন।

ধর্মসচিব বলেন, দু’দিনব্যাপী কর্মশালায় প্রাপ্ত নতুন ইনোভেশনসমূহকে আরো পরীক্ষানিরীক্ষা করে জনগণের সেবা প্রদানে কাজে লাগাতে হবে। সে লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি তিনি নির্দেশ দেন।

কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী প্রশিক্ষণার্থীগণ চারটি দলে বিভক্ত হয়ে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে হজ ব্যবস্থাপনায় পরিবহণসংক্রান্ত সমস্যা বিষয়ে ১টি, ওয়াকফ্ সম্পত্তি তালিকাভুক্তকরণ বিষয়ে ১টি, যাকাত আদায় সহজীকরণ বিষয়ে ১টি এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে অনুদান বিতরণ সহজীকরণে ১টিসহ মোট ৪টি বিষয়ে উদ্ভাবনী ধারণা প্রদান করেন।

দু’দিনব্যাপী কর্মশালায় সম্পদ ব্যক্তি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গভর্নেন্স ইনোভেশন ইউনিটের উপপরিচালক মো. কামরুল হাসান এবং মোহাম্মদ আলী নেওয়াজ রাসেল।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব ড. মোয়াজ্জেম হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত দু’দিনব্যাপী কর্মশালায় ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ ওয়াকফ্ প্রশাসকের কার্যালয়, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট এবং খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ অংশগ্রহণ করেন।

প্রিন্স, ঢাকা নিউজ২৪