কোটা নিয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে আলোচনা হয়নি

নিউজ ডেস্ক: কোটা নিয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে কোনো আলোচনা হয়নি বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। তবে এ বিষয়ে শিগগিরই একটি সিদ্ধান্ত পাওয়া যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।

সোমবার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘যতদূর শুনেছি, কোটার বিষয়ে একটি সারসংক্ষেপ ইতিমধ্যে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন আছে। হয়তো কিছুদিনের মধ্যে হয়ে যাবে।’

কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে গত ৮ এপ্রিল শাহবাগ অবরোধ করে আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা। পুলিশ তাদের উঠিয়ে দিলে রাতভর ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া চলে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায়। সে রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ও তাণ্ডব চালায় দুর্বৃত্তরা। পক্ষে-বিপক্ষে সংসদ ও দেশব্যাপী তুমুল আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে ১১ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী সংসদে ঘোষণা দেন, চাকরিতে আর কোটাই থাকবে না।

প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের ঘোষণা দেওয়ার পর আন্দোলনকারীরা ক্যাম্পাসে আনন্দ মিছিল করে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মাদার অব এডুকেশন’ উপাধিতে ভূষিত করে। এরপর থেকে তারা প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশের দাবি জানিয়ে আসছে।

গত ৯ মে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন থেকে ১০ মের মধ্যে প্রজ্ঞাপনের দাবি জানান। অন্যথায় ১৩ মে রোববার থেকে তারা ফের আন্দোলনের নামার ঘোষণা দেন। পরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কোটা সংস্কারে কমিটি গঠনের প্রস্তাব পাঠায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। তবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের কমিটি গঠনের এ উদ্যোগকে আন্দোলন ভণ্ডুলের ষড়যন্ত্র আখ্যা দিয়ে তা প্রত্যাখ্যান করেন আন্দোলনকারীরা।

কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন দাবিতে সোমবারও রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ করছেন আন্দোলনকারীরা।