কোটা বাতিল প্রজ্ঞাপন জারির দাবি শিক্ষার্থীদের

রাবি প্রতিনিধি: কোটা বাতিলের ঘোষণাকে প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করার দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা। আজ রবিবার দুপুর ১২টায় বিশ্ব বিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এ বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

শনিবার রাতের এক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ঈদের আগ পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দেয়া হলেও শিক্ষার্থীদের সমালোচনার মুখে আন্দোলন স্থগিতের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা হয়েছিল।

রবিবার সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে বিশ্ব বিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে আবার একই স্থানে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন শিক্ষার্থীরা।

কোটা সংস্কার আন্দোলন বিশ^বিদ্যালয় শাখার ভারপ্রাপ্ত সহ-সমন্বয়ক মোর্শেদুল ইসলাম বলেন, ‘কোটাধারীরা নিজেদের নামের পাশে কখনো উল্লেখ করেনা যে তিনি কোটাধারী। কারণ কোটা কখনো সম্মানের মানদণ্ড হতে পারে না। সম্মানের মানদণ্ড হলো মেধা। প্রধানমন্ত্রী সাম্প্রতিক সময়ে আকাশ পথ জয় করেছেন আমরা আশা করি তিনি ছাত্র সমাজের মনও জয় করতে পারবেন।

এসময় তিনি আরও বলেন, আন্দোলনকারীদের ওপর কোথাও হামলা হলে আন্দোলনের দাবানল চারিদিকে আরও দ্রæত ছড়িয়ে পড়বে। প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন আকারে জারির বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নেওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে এবং আমরা প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

বিক্ষোভ মিছিলে আন্দোলনকারীরা বিভিন্ন ধরনের শ্লোগান দিতে থাকেন- ‘বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বৈষম্যর ঠাঁই নাই’ ‘চারদিকে একি শুনি প্রজ্ঞাপনের জয়ধ্বনি’ আর নয় কালক্ষেপণ, এবার চাই প্রজ্ঞাপন’।

আন্দোলন স্থগিত ও স্থগিতের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের বিষয়ে কোটা সংস্কার আন্দোলনের সমন্বয়ক মাসুদ মোন্নাফ বলেন, ‘ঈদ ও রমযানের ছুটির কারণে বিশ্ব বিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী বাড়ি চলে যাওয়ায় আন্দোলন স্থগিত করা হয়েছিলো। তবে কেন্দ্রের নির্দেশের পর সেই স্থগিতকৃত সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা হয়েছে।’ তবে আন্দোলন স্থগিত ও সেই সিদ্ধান্ত পুণরায় প্রত্যাহারের কারণে ক্ষুব্ধ হয়েছেন বিশ^বিদ্যালয়ের আন্দোলনকারী বেশকিছু শিক্ষার্থী।

প্রিন্স, ঢাকা