আটককৃত রোহিঙ্গা নারীকে ক্যাম্পে ফেরত

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে তথ্য গোপন করে পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে এসে দুই রোহিঙ্গা নারী সহ তিনজনকে আটকের পর সালমা খাতুন(২৬) রমিছা (৩০) নামে দুই রোহিঙ্গা নারীকে কক্সবাজার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ফেরত পাঠিয়েছে। ৮মে মঙ্গলবার ময়মনসিংহের কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি(তদন্ত) খন্দকার শাকের আহ্ম্মেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

উল্লেখ্য’ ৭মে সোমবার ময়মনসিংহ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে ভুয়া পরিচয় দিয়ে পাসপোর্ট সংগ্রহের সময় দুজনের পরিচয় নিয়ে সন্দেহ সৃষ্টি হয় উপপরিচালক নুরুল হুদার। পরে তাদের তিনি জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তাতে দুই রোহিঙ্গা নারীর দেওয়া তথ্যে গরমিল পাওয়া যায়। নিজেদের বিবাহিত পরিচয় দিলেও স্বামীর নাম বলতে পারেননি তারা। পরে উপ-পরিচালক তাদের বাংলাদেশী পরিচয় যাচাই কালে সত্যতা পাননি।

পরবর্তীতে রোহিঙ্গা দুই নারীসহ তিনজনকে পাসপোর্ট অফিসে আটক রাখা হয়। পাসপোর্ট অধিদপ্তরের প্রধান অফিসে যোগাযোগের পর সোমবার বিকালে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন উপপরিচালক।

উপপরিচালক নুরুল হুদা জানান, দুই রোহিঙ্গা নারীর একজন ঢাকা অন্যজন দিনাজপুরের ঠিকানা ব্যবহার করেছেন।দালাল ছাবিকুন্নাহার ঢাকার সাভারের বাসিন্দা। কোতোয়ালী মডেল থানা সূত্রে জানা যায়, দুই রোহিঙ্গা নারী কুতুপালং আশ্রয় শিবিরে থাকতেন এবং সেখানে তাদের পাঠানো হয়েছে।

প্রিন্স, ঢাকা