পাহাড়কে আবার অস্থিতিশীল করার চক্রান্ত চলছে

নিউজ ডেস্ক: সন্ত্রাসীরা আবারও পাহাড়কে অস্থিতিশীল করার চক্রান্ত করছে। শান্ত পাহাড়ে একের পর এক হত্যা, অপহরণের ঘটনা ঘটছে। উপজেলা চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমাকে হত্যা এই ষড়যন্ত্রের অংশ। স্বাধীন দেশে এমন অবস্থা চলতে পারে না। পাহাড়ে শান্তি ফেরাতে শক্তিমান চাকমার হত্যাকারীদের দ্রুত বিচারের আওতায় আনতে হবে।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদের মানববন্ধনে বক্তারা এসব কথা বলেন।

নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট শক্তিমান চাকমাকে বৃহস্পতিবার দুর্বৃত্তরা গুলি করে হত্যা করে। শুক্রবার শক্তিমান চাকমার অন্ত্যোষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে যাওয়ার পথে গুলিতে পাঁচজন নিহত হন। এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে মানববন্ধন করা হয়। শক্তিমান চাকমা ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ছিলেন।

বক্তারা বলেন, শক্তিমান চাকমাকে দিনদুপুরে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর ওপর এ ধরনের হামলা, নির্যাতন, নিপীড়ন বন্ধ করতে হবে। না হলে পাহাড় আবার অশান্ত হয়ে উঠবে। পরিস্থিতির পরিবর্তন না হলে ভবিষ্যতে পাহাড়িরা সংসদ নির্বাচনে ভোট দিতে নিরুৎসাহিত হবে। সুষ্ঠু বিচার হলে ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে না।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন আয়োজক সংগঠনের সভাপতি নির্মল চ্যাটার্জি, সাধারণ সম্পাদক রমেন মণ্ডল, মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক দীপ্তিষ চন্দ্র হালদার, সহসভাপতি বিপুল ঘোষ, সাংগঠনিক সম্পাদক রবীন্দ্রনাথ বসু প্রমুখ।