গ্রামে মসজিদ বানালেন হিন্দু ও শিখ ধর্মাবলম্বীরা

নিউজ ডেস্ক: সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির নজির তৈরি করল পাঞ্জাবের মাম গ্রাম। ওই গ্রামের মসজিদ বানালেন হিন্দু ও শিখ গ্রামবাসীরা।

তারও আগে থেকেই ওই গ্রামে একটি মন্দির নির্মাণে কাজ করছিলেন নাজিম খান নামে এক মুসলিম শ্রমিক। মন্দির থাকলেও কাছাকাছি কোনো মসজিদ ছিল না। যদিও ওই গ্রামে মুসলিম রয়েছেন প্রায় ৪০০ পরিবার। আর্থিক অনটনের কারণে চাঁদা তুলেও মসজিদ বানানো সম্ভব হচ্ছিল না।

তাই যে মন্দিরে কাজ করছিলেন নাজিম, সেই মন্দির কমিটির কাছে অনুরোধ করেছিলেন মসজিদ বানাতে সাহায্য করার জন্য। সপ্তাহখানেকের মধ্যেই মন্দির কর্তৃপক্ষ মসজিদের জন্য জমিদান করে। আর্থিক সাহায্যে এগিয়ে আসেন শিখরা।

নাজিম বলছেন, ‘‌আমি আনন্দে আত্মহারা হয়ে গিয়েছিলাম। ওঁদের কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা নেই।’‌ দু’‌মাসের চেষ্টায় বানানো হয় মসজিদ। সবচেয়ে বড় কথা, মসজিদ বানাতে হিন্দুদের জমি আর শিখদের অর্থ দেয়া নিয়ে, কোনো সম্প্রদায়ের কারও কোনো ক্ষোভ নেই। গ্রামে মসজিদের পাশে রয়েছে হিন্দুদের মন্দির আর শিখদের গুরুদ্বার।

নাজিমের বন্ধু ভরত শর্মা বলেন, ‘আমাদের এখানে কোনো রাজনীতিবিদ নেই যে আমাদের মধ্যে বিভেদ তৈরি করবে।’