নারী ধর্মগুরু রাধে মা’র কর্মকাণ্ডে হইচই

নিউজ ডেস্ক: তার আসল নাম সুখিন্দর কাউর। কিন্তু গোটা ভারত তাকে চেনে ‘রাধে মা’ নামেই। এই মুহূর্তে কারাগারে রয়েছে বাবা রাম রহিম, আসারাম বাপুরা। তাদের মতোই বিতর্কিত ও স্বঘোষিত ধর্মগুরু রাধে মা যে বহাল তবিয়তেই রয়েছেন তা বোঝা গেল একটি ভিডিও থেকে।

সম্প্রতি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, রাধে মা নাচছেন, পরনে উজ্জ্বল লাল পোশাক। জয়পুরের এক বিয়ের আসরে এভাবেই দেখা গেল বিতর্কিত রাধে মাকে। তার সেই নাচের ভিডিও হলো ভাইরাল।

ইন্টারনেটে ওই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর ভারতজুড়ে হইচই শুরু হয়েছে। বাবা রাম রহিম বা আসারাম বাপুদের মতো নারী ধর্মগুরুরা ধরাছোঁয়ার বাইরে। রাধে মা’কে নিয়ে নানা বিতর্ক দানা বেঁধেছে বিভিন্ন সময়েই। মুম্বাইতে সঞ্জয় গুপ্তা নামের এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে থাকেন রাধে মা। বাড়িটির নাম হয়েছে রাধে মা ভবন।

ওই পরিবারেরই গৃহবধূ রাধে মা’র বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিলেন, তিনি নাকি পণের জন্য ওই মহিলার বাবা-মাকে জোর করেছেন! ২০১৫ সালে টিভি অভিনেত্রী ডলি বিন্দ্রা রাধে মা ও তার সঙ্গীর বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছিলেন তাকে যৌন হেনস্তা করার।

এমনই নানা বিতর্ক ও অভিযোগ ঘিরে রয়েছে তাকে। কখনও টচুল বলিউডের গানে কোমর দোলানো, কখনও পুরুষ ভক্তের কোলে উঠে পড়া। যদিও তার ভক্তদের দাবি, রাধে মা নাকি মা দুর্গারই আর এক রূপ! ভক্ত তালিকায় সুভাষ ঘাইয়ের মতো পরিচালক বা রবি কিষেণের মতো ভোজপুরী অভিনেতা তো রয়েছেনই। রয়েছেন সাংসদ ও মন্ত্রী বিজেপির বিজয় সাম্পলাও।