সংসদ বহাল রেখে জাতীয় নির্বাচন নয়: ড. কামাল

নিউজ ডেস্ক: গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, সংসদ বহাল রেখে আগামী জাতীয় নির্বাচন আয়োজন করা উচিত হবে না। তবে এটি তার নিজস্ব মত। অতীত অভিজ্ঞতার আলোকে এটা বলা যায় কিছু অসৎ লোক ছাড়া সবাই বলবে আগামী নির্বাচন হতে হবে অবাধ নিরপেক্ষ।

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, দেশের মানুষ সুষ্ঠু নির্বাচন চায়। তারা আশা করেছিল, ২০১৪ সালের নির্বাচনের পর খুব শিগগির আরো একটি নির্বাচন হবে। তবে নির্মম পরিহাস, সে নির্বাচন এখনও অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। জনগণের দাবি আদায়ে ঐকবদ্ধ হওয়া ছাড়া বিকল্প নেই।

ড. কামাল বলেন, দেশের মানুষ গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। দেশে সর্বত্র ঘুষ-দুর্নীতিতে ছেয়ে গেছে। জনগণ অতিষ্ট। সাধারণ মানুষ সুশাসন চায়।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, স্বাধীনতাবিরোধী ছাড়া সবার সঙ্গে ঐক্য হবে। ঐক্য হবে নীতির ওপর ভিত্তি করে। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে মাধ্যমে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করা হবে। তিনি বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোতে গণতন্ত্র নেই। দলগুলোর মধ্যে গণতন্ত্র আনতে ব্যাপক সংস্কার প্রয়োজন।

এর আগে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন দলের কেন্দ্রীয় নেতা আওম শফিক উল্লাহ। এতে বলা হয়, নব্বইয়ের তিন জোটের রূপরেখা ও ২০০৫ সালে ১৪ দলের ২৩ দফা কর্মসূচিভিত্তিক গণআন্দোলনের বিজয়ের পর লক্ষ্য ও কর্মসূচি বাস্তবায়নে জাতীয় ঐক্যের ঘাটতি ও দুর্বলতার কারণে জনগণের গণতান্ত্রিক প্রত্যাশা আজও পূরণ হয়নি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- দলের কার্যনির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মহসিন মন্টু, কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডভোকেট জগলুল হায়দার আফ্রিক, অ্যাডভোকেট আলতাফ হোসেন চৌধুরী, জানে আলম, রফিকুল ইসলাম পথিক প্রমুখ।