দিল্লি ডেয়ারডেভিলেসর বিরুদ্ধে হাত খুললেন ডি ভিলিয়ার্স

নিউজ ডেস্ক: সময় একটু বেশি নিয়ে ফেললেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। আইপিএলের ১১ তম আসরের ১৯ তম ম্যাচে এসে দেখা গেল তার শো। ভক্তদের কাছে একটু দেরি তো বটেই। তবে দেরিতে যেহেতু শো শুরু করেছেন সবার থেকে ঝড়টা একটু বেশি বড় করেই তুললেন দক্ষিণ আফ্রিকার এই ৩৬০ ডিগ্রি খ্যাত ব্যাটসম্যান। দিল্লি ডেয়ারডেভিলেসর দেওয়া লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে খেললেন ৩৯ বলে ৯০ রানের ইনিংস। স্টাইক রেট ২৩০.৭৭। ছয় মেরেছেন পাঁচটি আর চারের মার ১০ টি। দিল্লির দেওয়া ১৭৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ১২ বল বাকি থাকতে ৬ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে এই দক্ষিণ আফ্রিকান রান মেশিন।

ভিলিয়ার্স অবশ্য প্রথম দুই ম্যাচে ৪৪ ও ৫৭ রানের দুটি ইনিংস খেলেছেন কিন্তু তাতে কি আর ভক্তদের মন ভরে। আইপিএলের এবারের আসরে সেরা তারকাদের সবার বড় করে ঝড় তোলা যে একবার করে শেষ। ক্রিস গেইল, শেন ওয়াটসন, ক্রিস লিন, রোহিত, বিরাট কোহলি কিংবা ধোনি। বড় নামগুরোর মধ্যে বাকি ছিলেন ডি ভিলিয়ার্স। তিনিও দেখিয়ে দিলেন নিজের খেল।

স্টাইক রেটের হিসেবে অন্যদের ফেলে দিলেন পেছনে। এবারের আইপিএলে সেঞ্চুরি করার পথে গেইলের স্টাইক রেট ছিল ১৬৫.০৭। এরপর সেঞ্চুরি হাঁকানো ওয়াটসন রান করেছেন ১৮৫.৯৬ স্টাইক রেটে। ব্যাঙ্গালুরকে হারানোর পথে রোহিত শর্মা খেলেছেন ৯৪ রানের ইনিংস। তার স্টাইক রেট ১৮০.৭৬। একই ম্যাচে পরাজিত হয়েও কোহলি খেলেছেন ৯২ রানের ইনিংস। তিনি রান তুলেছেন ১৪৮.৩৮ স্টাইক রেটে। সে হিসেবে বড় ঝড় তোলা খেলোয়াড়দের মধ্যে তিনিই আছেন অন্যদের থেকে এগিয়ে। তার স্টাইক রেট ২৩০.৭৭।

এর আগে টস জিতে প্রথম বল করার সিদ্ধান্ত নেন ব্যাঙ্গালুরু অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ব্যাট করে গৌতম গম্ভীরের দল নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৭৪ রান তোলে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৫ রান করেন রিশভ পান্তে। ৪৮ বলে তার ৮৫ রানের ইনিংসটি ছিল সাতটি ছয় ও ছয়টি চারে সাজানো। স্টাইক রেট ১৭৭.০৮। এছাড়া সাইরাস আয়ার খেলেন ৩১ বলে ৫২ রানের দারুণ এক ইনিংস। কিন্তু তাদের সংগ্রহ একাই মামুলি বানিয়ে ফেললেন ডি ভিলিয়ার্স। ১২ বল হাতে রেখে ম্যাচ জিতিয়ে ফিরলেন সাজঘরে।