ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের রং-তুলিতে বৈশাখ

রাউজান প্রতিনিধি: রং-তুলি দিয়ে স্কুলঅঙ্গনে মনোযোগ দিয়ে বর্ণিল আঁচড় টানাছে ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা। তাদের রং-তুলির আঁচড়ে নববর্ষকে জাঁকিয়ে তোলা হয়। পহেলা বৈশাখে রঙের আলোয় মনের অন্ধাকার ঘোচাতে ব্যস্ত ছিল তারাও। স্কুল অঙ্গনে ফোটিয়ে তোলা হয় নান্দনিক আল্পনা।

বাংলা সংস্কৃতি আর ঐহিত্যকে ধারণ করে তারও যেন এ উৎসবের স্মারক। শনিবার পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে রাউজান উপজেলার কুণ্ডেশ্বরী এলাকায় অবস্থিত নর্থ পয়েন্ট ন্যাশনাল স্কুল অঙ্গনে খুব মনোযোগ সহকারো বিভিন্ন কালারের রং দিয়ে আল্পনা আঁকতে দেখা যায় একদল শিশুকে।

ওই স্কুল সূত্রে জানা যায়, শিশুদের সৃজনশীলতার বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে পহেলা বৈশাখে ও বুলবুল সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের যৌথ উদ্যোগে এই আয়োজন। স্কুলটির ২০ জন ক্ষুদে শিক্ষর্থী আল্পনা অঙ্কনে অংশগ্রহণ করেছে। বৈশাখী আল্পনা অঙ্গনরত মিনহাল, মোবার্শিরা, প্রিতম বলেন, পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে আমরা স্কুল অঙ্গনে এই প্রথম আল্পনা এঁকেছি। পহেলা বৈশাখে নর্থ পয়েন্ট ন্যাশনাল স্কুলে চিত্রাঙ্কন বিভাগের উদ্বোধন করেন নর্থ পয়েন্ট ন্যাশনাল স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ পলাশ মজুমদার।

এ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন উপাধ্যক্ষ সেলিনা আকতার, পূজা দাশ, ফাতেমা আকতার, মানস মজুমদার, সাংবাদিক মো. হাবিবুর রহমান, মো. এরশাদ, চিত্রাঙ্গন শিক্ষক নিশান চৌধুরী, টিনু বড়–য়া, সমাপ্তি চৌধুরী প্রমূখ। এর আগে পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারী শতাধিক ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের হাতে নানা রঙে তৈরি মুকুট, মুখোশ ও পাখা শোভা পায়।

প্রিন্স, ঢাকা