চোরাকারবারীর গুলিতে বিজিবি’র দুই সদস্য আহত

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে বিজিবি-চোরাকারবারী গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে। চোরাকারবারীদের ছোড়া গুলিতে ২ জন বিজিবি সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১.৩০ টার দিকে উপজেলার প্রাগপুর ইউনিয়নের জামালপুর সীমান্তে বিজিবি ও চোরাকারবারীদের মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে।

বিজিবি ও স্থানীয় সূত্র জানায়, জামালপুর সীমান্তে শীর্ষ চোরাকারবারী ভুট্ট, লালু, ডাবু, রবিউল ও সেকুলসহ ১০-১২ জন ভারতের নদীয়া জেলার হোগলবাড়িয়া থানার নাসিরাপাড়া সীমান্তের ১৫৩-২(এস) সীমান্ত পিলার সংলগ্ন এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে মাদক পাচার করছিল। এসময় ৩২বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধিনস্থ জামালপুর বিওপি’র টহল দল চোরাকারবারীদের ধাওয়া দিলে সশস্ত্র চোরাকারবারীরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।

জবাবে বিজিবি সদস্যরাও গুলি চালালে চোরাকারবারীরা পালিয়ে যায়। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে অন্তত ১৩-১৪ রাউন্ড গুলি বর্ষনের ঘটনা ঘটলে সীমান্ত সংলগ্ন গ্রামবাসীদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ নায়েক শোভন ও কনষ্টেবল অনিন্দকে উদ্ধার করে মিরপুর ব্যাটালিয়নে নেওয়া হয়। চোখে গুলিবিদ্ধ নায়েক শোভনের অবস্থা অশংকাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে এবং কনষ্টেবল অনিন্দ স্থানীয়ভাবে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় জামালপুর এলাকার কলেজ ছাত্র নাজমুল (১৮) ও লালচাঁদ নামে ২জনকে আটক করে আজ শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে দৌলতপুর থানায় সোপর্দ করেছে বিজিবি।

চোরাকারবারীর সাথে বিজিবি’র গুলি বিনিময়ের বিষয়ে জামালপুর ক্যাম্প ইনচার্জ নায়েক সুবেদার আবুল হাসেম চোরাকারবারীদের ছোড়া গুলিতে তাদের ২জন সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন এবং চোরাকারবারীদের লক্ষ্য করে তারা ৭ রাউন্ড গুলি বর্ষনের কথা স্বীকার করেছেন। অপরদিকে সীমান্তে গোলাগুলির খবর পেয়ে কুষ্টিয়ার মিরপুর সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আশরাদুজ্জামান এবং ৩২ বিজিবি ব্যাটালিয়ন কমান্ডার লে. কর্নেল রাশেদ আলম খান জামালপুর সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন করে চোরাকারবারীদের আটকে কঠোর পদক্ষেপের কথা জানিয়েছেন। এঘটনার পর থেকে সীমান্ত এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে।

প্রিন্স, ঢাকা