মামুনের অর্থপাচার মামলা ৪ মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ

নিউজ ডেস্ক: বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বন্ধু ও বিতর্কিত ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের বিরুদ্ধে করা অর্থপাচার মামলা আগামী চার মাসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে বিচারিক আদালতকে নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

পাশাপাশি বিচারিক আদালতে চলমান এই মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের ছয় সাক্ষীকে পুনরায় জেরা করতেও মামুনের আইনজীবীদের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনে নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার সদস্যের বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এই আদেশ দেন।

আদালতে গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এজে মোহাম্মদ আলী ও এস এম শাহজাহান। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

মামলার বিবরণে জানা যায়, অর্থপাচারের অভিযোগে দুদকের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ইব্রাহিম ২০০৯ সালের ২৬ অক্টোবর ক্যান্টনমেন্ট থানায় গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। মামলার অভিযোগে বলা হয়, টঙ্গীর বিসিক শিল্প এলাকায় একটি ৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের কার্যাদেশ তারেক রহমানের মাধ্যমে পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে খাদিজা ইসলামের কাছ থেকে ২০০৩ সাল থেকে ২০০৭ সালের ৩১ মে পর্যন্ত বিভিন্ন সময় মোট ২০ কোটি ৪১ লাখ ২৫ হাজার ৮৪৩ টাকা গ্রহণ করেন তিনি। পরে তা সিঙ্গাপুর পাচার করা হয়।

বর্তমানে মামলাটি ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ আদালতে বিচারাধীন।