আদর্শহীন মেধা কল্যাণ বয়ে আনে না: নৌমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, আদর্শহীন মেধা ও রাজনীতি দেশের জন্য কোন কল্যাণ বয়ে আনে না। তার প্রমাণ বিএনপি জামায়াতের রাজনীতি। ২০১৩-১৪ সালে তাদের জ্বালাও-পোড়াওয়ের কারণে দেশের অনেক সাধারণ নিরীহ মানুষ মারা গেছে। অন্যদিকে নীতিও আদর্শ নিয়ে বর্তমান সরকার গত নয় বছরে দেশকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়েছে। যার প্রমাণ বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশ।

বৃহস্পতিবার ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউটের (এনএমআই) মাঠে ১৮ তম ব্যাচ ও মাদারীপুর শাখার ৭ম ব্যাচের প্রশিক্ষণার্থী রেটিংসদের প্রশিক্ষণ সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

শাজাহান খান বলেন, দেশের আমদানি রপ্তানির ৯০ ভাগ হয় সমুদ্র দিয়ে। তাই শিপিং সেক্টরে দক্ষ মানব সম্পদ সৃষ্টির লক্ষ্যে ট্রেনিং ইনস্টিটিউটসহ বিভিন্ন সংস্থাগুলো নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। নৌ পরিবহন সেক্টরের আন্তরিক প্রচেষ্টায় ও সরকারিভাবে বাংলাদেশি নাবিকদের মার্কেটিং করার কারণে নৌ-বিশ্ব বাজারে নাবিকদের চাহিদা বাড়ছে। যেসকল দেশের নাবিকদের ভিসার সমস্যা আছে, তা নিরসনে সরকার কাজ করছে। শিগগির মধ্যপ্রাচ্য ও সিংগাপুরে নাবিকদের ভিসা সমস্যা সমাধান করা সম্ভব হবে।

নতুন প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, তোমরা যারা কর্মক্ষেত্রে যাবে, সব সময় দেশের স্বাধীনতা এবং সার্বভৌমত্বের বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। এমন কোন কাজ করবে না যাতে দেশের সম্মানহানি হয়।

এনএমআইয়ের অধ্যক্ষ ক্যাপ্টেন ফয়সাল আজিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিদায়ী প্রশিক্ষণার্থীদের মনোজ্ঞ কুচকাওয়াজ উপভোগ করেন নৌ পরিবহন মন্ত্রী। অনুষ্ঠানে সেরা তিন প্রশিক্ষণার্থীকে পুরষ্কার দেওয়া হয়। পুরষ্কারপ্রাপ্তরা হলেন এমদাদুল করিম, দিদার আলম এবং মোরশেদুল ইসলাম। এদের মধ্যে সেরা নৈপুণ্যের জন্য স্বর্ণপদক পান মোরশেদুল ইসলাম।