সিটি নির্বাচনে ইভিএমের পাশাপাশি সিসিটিভি ক্যামেরা

নিউজ ডেস্ক: নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেছেন, ‘আগামী ১৫ মে গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশন কিছু ক্ষেত্রে ইভিএম ব্যবহার করার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। তার পাশাপাশি কিছু কিছু কেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরাও থাকবে। আমরা যেন নির্বাচন কমিশন ভবন থেকেই নির্বাচনী তৎপরতাগুলো দেখতে পারি, এজন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। ইভিএম কয়টি কেন্দ্রে করা হবে, সেটি এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি।’

শনিবার সকালে গাজীপুর জেলা শহরের বঙ্গতাজ অডিটোরিয়ামে স্থাপিত গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

এ সময় গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার রকিব উদ্দিন মণ্ডল, সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও গাজীপুর নির্বাচন অফিসার তারিফুজ্জামানসহ সিটি নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ‘এই নির্বাচন ঘিরে নির্বাচন কমিশন যে সমস্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সেগুলো ইতিবাচক, অত্যন্ত ভালো। সুষ্ঠু-সুন্দর, নিরপেক্ষ এবং ভোটাররা যাতে নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারে এর জন্য যা যা করা দরকার নির্বাচন কমিশন তাই করবে।’

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে স্বাভাবিকভাবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন থাকবে। বিজিবি অবশ্যই থাকবে। সেনাবাহিনী মোতায়েনের পরিকল্পনা এখনো নেই আমাদের। লোকাল গভর্মেন্ট ইলেকশনগুলোতে সেনাবাহিনী সাধারণভাবে মোতায়েন করা হয় না।’

প্রার্থীদের আচরণবিধি ভঙ্গসংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, ‘যদি আমাদের নলেজে আসে আমরা তাৎক্ষণিকভাবে যে সমস্ত প্রার্থী শোভাযাত্রা করছে ও নির্বাচন আচরণবিধি ভঙ্গ করছে তাদের সতর্ক করে দেব।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের ১৫ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এখন মাঠে আছেন। তারা যদি আচরণবিধি ভঙ্গের খবর পান অবশ্যই জরিমানাসহ অন্যান্য আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’