বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসে রাষ্ট্রপতির বাণী

স্টাফ রিপোর্টার: রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন : “বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস পালনের উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই।

দেশের সার্বিক উন্নয়ন নিশ্চিত করতে সুস্থ ও কর্মক্ষম জনশক্তি একান্ত অপরিহার্য। উপযুক্ত স্বাস্থ্য সেবা ও পরিচর্যা নিশ্চিত করে রোগব্যাধি প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ এবং পুষ্টিমান উন্নয়নের মাধ্যমে একটি সুস্থ ও সবল জাতি গঠনে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ৪র্থ স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও জনসংখ্যা সেক্টর কর্মসূচির অধীন স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচি সর্বজনীন স্বাস্থ্য সেবা বাস্তবায়নের পথকে সুগম ও পরিশীলিত করছে। এবারের বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসের প্রতিপাদ্য ‘সর্বজনীন স্বাস্থ্য সুরক্ষা: সবার জন্য সর্বত্র (Universal Health Coverage : everyone, everywhere) আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে যথার্থ হয়েছে বলে আমি মনে করি।

বর্তমান সরকার স্বাস্থ্যখাতে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করছে। স্বাস্থ্য অবকাঠামো উন্নয়ন, দক্ষ জনশক্তি তৈরি ও নিয়োগ, অত্যাধুনিক চিকিৎসা সরঞ্জামাদি সংগ্রহ ও ডিজিটাল তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে চিকিৎসা সেবার মান বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলশ্রুতিতে মানুষের গড় আয়ু বৃদ্ধি পেয়েছে, কমেছে মাতৃ ও শিশু মৃত্যু হার।

তবে বর্তমানে ক্যান্সার, কিডনিরোগ, ডায়াবেটিসসহ নানা অসংক্রামক রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এসব রোগ প্রতিরোধে মানুষের স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে জীবনযাপনের অভ্যাস গড়ে তোলা প্রয়োজন বলে আমি মনে করি। এ ক্ষেত্রে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থা, সমাজের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ, সুশীল সমাজ, পেশাজীবী সংগঠন এবং সর্বস্তরের জনগণকে এগিয়ে আসতে হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসে গৃহীত কর্মসূচিতে আপামর জনগণের স্বতঃস্ফ‚র্ত অংশগ্রহণ এ বিষয়ে ব্যাপক গণসচেতনতা সৃষ্টিতে সহায়ক হবে বলে আমার বিশ্বাস।

আমি বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস ২০১৮ উপলক্ষে গৃহীত সকল কর্মসূচির সার্বিক সফলতা কামনা করছি।

খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”