বন্দুকযুদ্ধে চরমপন্থীর এক সদস্য নিহত

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার কয়া গড়াই নদীর চরে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থী সংগঠন লাল পতাকার সদস্য কুদ্দুস ওরফে সাগর (৪২) নামে একজন নিহত হয়েছে।

এ ঘটনায় র‌্যাবের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে র‌্যাব অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করেছে। আজ বৃহস্পতিবার ভোর পৌনে ৫টার দিকে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে।

র‌্যাব-১২ জানায়, একদল নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থী সংগঠনের সন্ত্রাসীরা বড় ধরনের নাশকতার উদ্দেশ্যে কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়ননের গড়াই নদীর কয়ার চরে অবস্থান করছে। গোপন সংবাদ পেয়ে র‌্যাব-১২ কুষ্টিয়া ক্যাম্পের সদস্যরা সেখানে অভিযান চালায়। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। জবাবে র‌্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি ছোড়ে। শুরু হয় উভয়ের মধ্যে বন্দুক যুদ্ধ।

প্রায় আধা ঘন্টা বন্দুক যুদ্ধ চলাকালে র‌্যাবের গুলির কাছে চরমপন্থী সন্ত্রাসীরা টিকতে না পেরে পিছু হটে। পরে র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থল তল্লাশী করে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সন্ত্রাসী কুদ্দুস ওরফে সাগরকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক গুলিবিদ্ধ সন্ত্রাসীকে মৃত ঘোষনা করেন।

‘বন্দুকযুদ্ধে’ র‌্যাবের দুই সদস্য এএসআই তহুরুল ও কনস্টেবল রশিদুজ্জামান আহত হলে তারা চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ‘বন্দুকযুদ্ধের’ পর ঘটনাস্থল থেকে একটি বন্দুক ও ৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে র‌্যাব। নিহত সন্ত্রাসী কুদ্দুস ওরফে সাগর রাজবাড়ী জেলার উড়াকান্দা গ্রামের মৃত তারক আলীর ছেলে এবং সে নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থী সংগঠন লাল পতাকার সদস্য বলে র‌্যাব সূত্র জানিয়েছে।

প্রিন্স, ঢাকা