কৌশলে আদিবাসীদের জমি দখল করা হচ্ছে: মেনন

স্টাফ রিপোর্টার: বৃটিস বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে আমাদের মুক্তিযুদ্ধেও আদিবাসীদের অনেক জোরালো ভূমিকা রয়েছে। আদিবাসীদের জীবিকার সাথে, তাদের সংস্কৃতির সাথে, তাদের ঐতিহ্যের সাথে, তাদের ভূমি ওতপ্রোতভাবে জড়িত। তাদের ছোট্ট এক টুকরো জমি, একটি পাহাড়ী গাছ, কিছু সবজি এগুলো তাদের বেচে থাকার অনুপ্রেরণাস্বরুপ। অথচ ক্রমান্বয়ে এই আদিবাসীদের তাদের নিজেদের জমিজমা থেকে উচ্ছেদ করা হচ্ছে।

ইট-ভাটার মাটির কথা বলে বা ইন্ডাস্ট্রির কথা বলে নানা কৌশলে আদিবাসীদের জমি দখল করা হচ্ছে। পূর্বে আদিবাসীদের যত জমিজমা ছিল ধীরে ধীরে তা নি:শেষ প্রায়। কিন্তু আমাদের সকলেরই একথাটি মনে ধারণ করতে হবে যে, আদিবাসীদের তাদের নিজ ভূমি থেকে সরানোর অপচেষ্টা করা হবে তাদের আত্মাকে মেরে ফেলার সামিল-বলে জানালেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্র্টির সভাপতি জনাব রাশেদ খান মেনন, এমপি।

আজ ০৫ এপ্রিল ২০১৮খ্রি: বৃহস্পতিবার, দুপুরে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে “সমতল আদিবাসীদের জন্য ভূমি কমিশন” শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আদিবাসীদের ভূমি ব্যবস্থাপনা ও জীবন প্রক্রিয়া নিয়ে নানাদিক তুলে ধরে সমাজকল্যাণমন্ত্রী বলেন, “আদিবাসীদের ভূমি রক্ষায় রাষ্ট্রকেই দায়িত্ব নিতে হবে।

তাদের জন্য কেবল ভূমি কমিশনই যথেষ্ট নয়; তাদের জন্য স্বতন্ত্র ভূমি আইনও করা প্রয়োজন। পার্বত্যবাসীদের জন্য ভূমি কমিশন গঠিত হলেও সমতলের আদিবাসীরা সেই সুবিধা পায় না। প্রচলিত যে আইন আছে তাতে সমতলের আদিবাসীদের ভূমি রক্ষা করতে ব্যাপক হয়রানির সম্মুখীন হতে হয়। ভূমি গ্রাসীরা নানা অযুহাতে, নানা অপকৌশলে আদিবাসীদের ভূমি গ্রাস করছে। এ অবস্থা থেকে উত্তোরণে রাষ্ট্রকে এগিয়ে আসতে হবে।”

প্রফেসর ড. মেজবাহ কামাল এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন আইন কমিশনের চীফ রিসার্স কর্মকর্তা ও জেলা জজ জনাব ফয়জুল আজিম, ভূমি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব কামরুল হাসান ফেরদৌস, আইন ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব উম্মে কুলসুম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন আরডিসি এর সাধারণ সম্পাদক জান্নাত-ই-ফেরদৌসী।